প্রশসানের বিরুদ্ধে অভিনবভাবে প্রতিবাদ জানালেন  জেলা বিজেপির তপশিলি মোর্চার নেতা-কর্মীরা। নেড়া হয়ে দুর্গাপুরে এসডিও অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখালেন তাঁরা।  উল্লেখ্য, এর আগে নেড়া হয়েছিলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

আরও পড়ুন, 'এটাতো ট্রেলর, সিনেমা এখনও বাকি', ফের 'পিসি-ভাইপো'কে খোঁচা শুভেন্দুর-রাজীবের  

 

 


মঙ্গলবার সকালে দুর্গাপুর এসডিও অফিসের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ করেন বিজেপির তপশিলি মোর্চার নেতা কর্মীরা। এসডিও অফিসের সামনেই একের পর এক নেতা হন। তাঁরা বলেছেন, এই সরকারের দেহ থাকলেও প্রাণের মৃত্যু ঘটেছে। তাই মস্তক মুণ্ডন করছি আমরা। তাঁরা অভিযোগ এনেছেন, ৩৪ বছর বাম সরকারও কিছু করেনি। চাকরি, শিক্ষা কোনও ক্ষেত্রেই তাঁদের কোনওরকম উন্নয়ন করেনি। তৃণমূল সরকারও কিছু করেনি। তাঁরই প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ। বিক্ষোভকারীরা জানিয়েছে, পশ্চিম বর্ধমান জেলাজুড়ে দুশোর বেশি বিজেপি কর্মী এদিন নেড়া হয়েছেন। 

আরও পড়ুন, ফালাকাটায় অন্য এক মুখ্যমন্ত্রী, গণবিবাহের অনুষ্ঠানে পা মেলালেন আদিবাসী নাচে 

 

 

উল্লেখ্য, এর আগে নেড়া হয়েচিলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। কারণ হিসেবে হিসেবে তিনি জানিয়েছেন, তৃণমূলে থেকে পাপ করেছেন, তাঁর প্রায়শ্চিত্য করলেন। মূলত তৃণমূলের কমতি গুলিই তুলে ধরে ঘাসফুল শিবিরকে হারাতে চায় বিজেপি। যার ঝলক শুরু হয়ে গিয়েছে তৃণমূলের দল ভাঙনের পর থেকেই। সৌমিত্র খাঁ, মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্য়োপাধ্য়ায় দল ছেড়ে এসে সেই তৃণমূলের দূর্বল জায়গা আগে থেকে জানায় তোপ দাগছেন।