৩১টি বুথের নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ৩৪,০০০ কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্যকে। কিন্তু, তৃতীয় দফা নির্বাচনের দিন, সেই কেন্দ্রীয় বাহিনীকেই দেখা গেল, স্থানীয় গুন্ডা বাহিনীর ভয়ে গুটিয়ে যেতে। ঘটনা হাওড়ায় উলুবেড়িয়া উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের।

উলুবেড়িয়া উত্তরের আমতায়, গতকাল রাত থেকে এলাকায় বোমাবাজি হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। চাটরা নিউ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এই ৩টি বুথের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে মধ্যপ্রদেশ পুলিশ। বোমাবাজির অভিযোগ পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তারা গিয়েছিল এলাকায়। কিন্তু, তাদেরকেই উল্টে বন্দুক-ধারাল অস্ত্র দেখিয়ে ভয় দেখানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

কাঁধে স্বয়ংক্রিয় বন্দুক নিয়েই সংবাদমাধ্যমকে বাহিনীর সদস্যরা জানিয়েছেন, ওয়ান শটার বন্দুক, ছুরি, ভোজালি-র মতো অস্ত্র নিয়ে তাদের ভয় দেখানো হয়েছে। এলাকায় যেতে নিষেধ করা হয়েছে। কিনতু, কোন দলের লোকজন তাদের ভয় দেখিয়েছে, তা জানাতে পারেনি কেন্দ্রীয় বাহিনী। তবে তারা নিশ্চিত, হুমকি দেওয়া দুষ্কৃতীরা স্থানীয় বাসিন্দাই।  

সাধারণ মানুষ যাতে নিরাপদে ভোট দিতে পারেন, তার জন্যই আনা হয় বাড়তি বাহিনী। কিনতু, যাদের নিরাপত্তা দেওয়ার কথা, তারাই যদি সন্ত্রস্ত হয়ে যান, তাহলে সাধারণ মানুষের কী অবস্থা হবে, তাই ভেবে শঙ্কিত রাজনৈতিক মহল। প্রথম দুই দফার মতো, তৃতীয় দফাতেও বিভিন্ন এলাকা থেকে নজিরবিহীন হিংসার খবর আসছে। তবে এর শুরুটা হয়েছে ভোটের আগেরদিন রাত থেকেই। এই অবস্থায় প্রশ্নের মুখে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাও।