'ওয়াশিং পাউডার  ভাজ পা,' বিজেপিকে নন্দীগ্রামের সভামঞ্চ থেকে আক্রমণ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। সোমবার নন্দীগ্রামের সভামঞ্চ থেকে ইতিহাসিক মুহূর্তে সৃষ্টি করলেন মমতা। তবে কোথাও যেন বারবার বিজেপি আক্রমণ করার পিছনে নন্দীগ্রামের ভূমিপুত্রের নাম লুকিয়ে ছিল। একেতো খাতায় কলমে সম্পর্কটুকু থাকলেও এই ঐতিহাসিক সভায় অনুপস্থিত ছিলেন শিশির অধিকারী এবং দিব্যেন্দু অধিকারী। তাই কোথাও যেন সোমবারের এই সভা গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলেছে। তবে বারবার যেন বিজেপিকে 'ওয়াশিন মেশিন' বলে 'কালো-সাদা'-র মাঝে নাম না করে শুভেন্দুকে আক্রমণ করেছেন মমতা।

আরও পড়ুন, 'ইশ্বর-আল্লা ওদের ক্ষমা করো-ভুল করলে আমাকে থাপ্পড় মেরো', নন্দীগ্রামে একুশের বীজ পুতলেন মমতা 

 

 


এদিন মমতা বলেন, 'রাজনীতিতে একদল আছে, যারা ত্যাগী। তাঁরা কোথাও যাবে না। কিন্তু আরেক দল আছেন, তাঁদের অনেক সম্পত্তি। প্রচুর টাকা-টাকা গুলি হয়েছে ঢাকা। সেই ঢাকা টাকা গুলি রক্ষিত করার জন্য জায়গাটা চাই। বিজেপি নেতারা দিল্লি যেতে বলছেন। হয় জেলে, নয় ঘরে। তৃণমূল করলে জেলে ভরবে। আর বিজেপি করলে কি, বলে প্রশ্ন করেন মমতা। এরপর নিজেই উত্তর দেন, 'বিজেপি করলে তুমি যেন ওয়াশিং মেশিন। কালো হয়ে ঢুকবে আর সাদা হয়ে বেরিয়ে আসবে। ওয়াশিং পাউডার ভাজ পা, এই হয়ে গিয়েছে বিজেপি।' বিজেপিকে আবারও খোঁচা মেরে তিনি বলেন,' আমার অনেক শুভেচ্ছা থাকবে। তোমরা প্রধানমন্ত্রী হও। রাষ্ট্রপতি হও। কিন্তু দয়া করে বাংলাকে বিক্রি করতে যেও না। ভারতবর্ষের নেতা হও, বিশ্বের নেতা হও। কিন্তু আমি বেঁচে থাকতে বাংলা বিক্রি হতে দেবো না।' এটা আমার শপথ, অঙ্গীকার, প্রতিজ্ঞা, চ্যালেঞ্জ যে কোনও কিছু মনে করতে পারেন, বললেন মমতা।

 

 

 

আরও পড়ুন, 'ভোটার লিস্টে রোহিঙ্গাদের নাম ঢুকিয়েছে তৃণমূল', অভিযোগ শুভেন্দুর 

 

আসলে সম্প্রতি  অসংখ্য নেতা-কর্মী-বিধায়করা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এই প্রসঙ্গে দলের সুপ্রিমোর দাবি, 'তৃণমূলে থাকলেই সিবিআই এবং ইডি-র ভয় দেখিয়ে বিজেপিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বলা হচ্ছে যদি টাকা রাখতে চাও-দুনম্বরি করতে চাও, তাহলে বিজেপিতে যাও'। তবে সাম্প্রতিক কালে প্রায় অধিকাংশ সভা থেকেই কম বেশি যতো তোপ দেওয়া হয়েছে বিজেপিকে, তার থেকে যেন বেশি তোপ দাগা হয়েছে, অধিকারী পরিবারে সদ্য ফোঁটা পদ্মের উপরে। তার উপর প্রাক্তণ তৃণমূল সাংসদ কেডি সিং আর্থিক কেলেঙ্কারি, কয়লা পাচার কাণ্ডে বিনয় মিশ্রের নাম সহ একাধিক তোপে অনেকটাই ভগ্নপ্রায় তৃণমূল।  তাই নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে বিজেপিকে ওয়াশিং মেশিং বললেও কোথাও যেন গলা অবধি এসেও শুভেন্দু নামটাই শুধু নেননি ,তবে বলার কিছু বাকিও রাখেননি মমতা, এমনটাই চাপান উতোর রাজনৈতিক মহলে।