এপ্রিল অর্থাৎ আগামীকালই তৃতীয় দফার ভোটগ্রহণ। ভোট হবে হাওড়া, হুগলী আর দক্ষিণ ২৪ পরগণার ৩১টি বিধানসভা আসনে। এই দফার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বেশ কয়েকজন বিদায়ী মন্ত্রী, প্রাক্তন মন্ত্রী, চলচ্চিত্র তারকারা। তবে, প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগও নেহাত কম নয়। দেখা যাচ্ছে বাংলায় তৃতীয় পর্বের নির্বাচনের প্রার্থীদের প্রায় চারভাগের একভাগের বিরুদ্ধেই ফৌজদারি মামলা রয়েছে।

অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস বা এডিআর (ADR) জানিয়েছে, তৃতীয় দফায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা প্রার্থীদের ২৬ শতাংশই, নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা দেওয়া হলফনামায় তাঁদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা থাকার কথা ঘোষণা করেছেন। নির্বাচনের এই দফার মোট ২০৫ জন প্রার্থীর মধ্য়ে ৫৩ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। এদের মধ্যে ৪৩ জন অর্থাৎ মোট প্রার্থীর ২১ শতাংশের বিরুদ্ধেই গুরুতর ফৌজদারি অর্থাৎ জামিন অযোগ্য মামলা রয়েছে। এই ৪৩ জনের মধ্যে ১৬ জন বিজেপির, ৫ জন সিপিএম-এর এবং ১০ জন তৃণমূলের। ৩১ টি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে ৮টিতেই তিন বা ততোধিক ফৌজদারি মামলা থাকা প্রার্থী লড়ছেন।

অন্যদিকে এডিআর-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই দফার নির্বাচনের প্রার্থীদের মধ্য়ে মোট ৩৩জন অর্থাৎ ১৬ শতাংশ প্রার্থী কোটিপতি। এঁদের মধ্যে ১৭ জন তৃণমূলের এবং বিজেপির ৮ জন। যদিও কোটিপতিদের তালিকায় সবার উপরে রয়েছে এক নির্দল প্রার্থীর নাম। তিনি শামসুল হুদা লস্কর। তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ৪৩ কোটি টাকা। তিনি মগরাহাট পশ্চিম কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ধনীদের তালিকায় এরপরেই রয়েছে তারকেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী তথা সাংবাদিক-রাজনীতিবিদ স্বপন দাশগুপ্তের নাম। রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ জানিয়েছেন তাঁর মোট সম্পদের মূল্য ৬ কোটিরও বেশি।