ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনীর কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ কমিশন। আগেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এবার সেই দাবিটাই মেনে নিয়ে আরও একধাপ এগোল  কমিশন। 'কোনওভাবেই ভোটারদের ভোটারকার্ড পরীক্ষা করতে পারবেন না কেন্দ্রীয় বাহিনী'- সাফ জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

আরও পড়ুন, আজ রাজ্যে হেভিওয়েট ৩, তারকেশ্বরে মুখোমুখি মোদী-মমতা, প্রচারে সামিল যোগীও 

 

 


রাজ্যে ইতিমধ্য়েই শেষ প্রথম ও দ্বিতীয় দফার ভোট। আর এর মধ্যে একাধিক বার কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাঁদের মূলত অভিযোগ ছিল, দুই দফা ভোটে রাজ্যের একাধিক জায়গায় ব্যাপকহারে অসামাজিক কাজ হয়েছে। বোটকে প্রভাবিত করেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। এমনকি অধিকার না থাকা সত্বেও অনেক ভোট কেন্দ্রেই ভোটারদের ভোটারকার্ড পরীক্ষা করতে দেখা গিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানজের। একাধিক জায়গায় বয় দেখিয়ে ভোট দিতে না দিয়ে ভোটারদের বাড়ি পাঠিয়েছেন জওয়ানরা বলেও অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। 

আরও পড়ুন, 'নন্দীগ্রামে আমিই জিতব', শাহ-র তোপ গিলে উত্তরবঙ্গে বিস্ফোরক মমতা 

 

 

শুক্রবার তৃণমূলের তরফে এই অভিযোগ নিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হন যশবন্ত সিনহা, ডেরেক, দোলা সেন, সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এরপরেই কার্যত নড়েচড়ে বসে নির্বাচজন কমিশন। নির্বাচন চলাকালীন কেন্দ্রীয় বাহিনীর ডানা ছেঁটে দেয় কমিশন। এবার থেকে প্রিসাইডিং অফিসারের অনুমতি ছাড়া আর বুথে ঢুকতে পারবেন না কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। পাশাপাশি 'কোনওভাবেই ভোটারদের ভোটারকার্ড পরীক্ষা করতে পারবেন না কেন্দ্রীয় বাহিনী'- কেন্দ্রীয় বাহিনীর এডিজি অশ্বিনী কুমার সিংহকে সাফ জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।