নন্দীগ্রামে মমতার আহত হওয়ার ঘটনায় মুখ্যসচিবের দেওয়া রিপোর্টে সন্তুষ্ট নয় কমিশন। ফের নতুন করে রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।  ফলে মুখ্যসচিবের কাছে আবার নতুন করে রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছেন ২ বিশেষ পর্যবেক্ষক। 

আরও পড়ুন, মমতার উপর 'হামলার' প্রতিবাদে রাজ্য জুড়ে শুরু তৃণমূলের 'মৌন মিছিল', দেখুন ছবি 


মমতার আঘাত লাগার ঘটনায় শনিবার কমিশনে রিপোর্টে জমা দিয়েছিলেন রাজ্য়ের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায়। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছিল, গাড়ির দরজার চাপ লাগতেই আহত হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘটনায় সময় বিপুল ভিড়ের কথা হয় রিপোর্টে। কিন্তু মমতার এই আঘাত লাগার ঘটনা যে নিছকই দুর্ঘটনা না পরিকল্পনা মাফিক মুখ্যমন্ত্রীকে কেউ আঘাত করেছে, তার কোনও স্পষ্ট কারণ উল্লেখ নেই ওই রিপোর্টে। আর তাই অখুশি কমিশন এবং ফের মুখ্যসচিবের কাছে নতুন করে রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।  

আরও পড়ুন, 'মমতার শারীরিক অবস্থার খবর কেউ নেননি', মোদী-শাহ-নাড্ডার বিরুদ্ধে অভিযোগ পার্থর 

 

অপরদিকে নন্দীগ্রামে গিয়ে আহত হওয়ার ঘটনা খতিয়ে দেখতে  শুক্রবার মেদিনীপুরে গেলেন কমিশনের ২ বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক এবং পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। শুক্রবার সাতসকালেই গুরুসদয় রোডে বিএসএফের গেস্ট হাউজ থেকে কলকাতা বিমানবন্দরের উদ্দেশ্য়ে রওনা হন  কমিশনের ওই ২ পর্যবেক্ষক। পাড়ি দেন পশ্চিম মেদিনীপুরে। নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর আহত হওয়ার ঘটনায় তোলপাড় রাজ্য। ভোটের মুখে নিরাপত্তা ইস্যুতে নির্বাচন কমিশনের দিকে আঙুল তুলেছে রাজ্য়ের শাসকদল। এমন পরিস্থিতিতে এই সফর খুবই গুরুত্বপূর্ণ মনে করছে পর্যবেক্ষক মহল। সকাল দশটায় মেদিনীপুরে পৌছেই ওই দুই পর্যবেক্ষক পূর্ব-পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামের প্রশাসনিক আধিকারিকের সঙ্গে বৈঠকও করেন। কথা বলেন একধিক রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গেও। বৈঠক হওয়ার কথা কেন্দ্রীয় বাহিনীর আধিকারিকদের সঙ্গেও। উল্লেখ্য, মমতার অসুস্থতার জন্য শনি-রবিবার তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচি স্থগিত করল তৃণমূল। সোমবার জেলা সফর শুরু করার কথা দলনেত্রীর। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে তাঁর শারীরিক পরিস্থিতি এবং চিকিসকদের সিদ্ধান্তের উপর।