প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এবার সরাসরি তাঁর সঙ্গে বিতর্কের মঞ্চে উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানালেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে রবিবার বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেস- যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের প্রধানই রবিবার প্রচার করেন দলের হয়ে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ব্রিগেডের জনসভায় ভাষণ দেন। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিলিগুলি থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রচার করেন। কেন্দ্র বিরোধী সুর চড়িয়ে রান্নার গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিলিগুড়িতে সিলিন্ডার নিয়ে একটি মিছিল করেন। সেখানেই তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে সরাসরি তাঁর সঙ্গে বিকর্তে অংশ নেওয়ার জন্য আহ্বান জানান। 

ব্রিগেডের বিশাল জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যের তৃণমূল সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও তীব্র সমালোচনা করেন বলেন রাজ্যের মানুষ তাঁকে দিদি ভেবেছিল। কিন্তু তিনি একজনের পিসি হয়ে রয়ে গেলেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গ উত্থাপন না করেও প্রধানমন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন রাজ্যে তৃণমূলের খেলা শেষ।  শিলিগুড়ি থেকেই তার উত্তর দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিনও বলেন 'খেলা হবে। আমরা প্রস্তুত রয়েছি।' তারপরই তিনি বলেন তাঁরা একের বিরুদ্ধে এক এরকমই খেলতে রাজি রয়েছেন। তিনি জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন,  বিজেপি যদি ভোট কিনতে চায়, তাহলে জনগণ যেন বিজেপির থেকে টাকা নিয়ে নেন আর তাঁদের ভোটটা তৃণমূল কংগ্রেসকে দিয়ে দেন। কলকাতা থেকে ৫৭০ কিলোমিটার দূরে শিলিগুড়ি থেকে  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, ' খেলা হবে। আপনি দিনক্ষণ সবকিছু স্থির করুন।' এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন তিনি চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে অভ্যস্ত। তারপরই তিনি প্রধানমন্ত্রীকে বিতর্কের আহ্বান জানিয়ে বলেন একের বিরুদ্ধে এক খেলতে হবে তাঁকে।  যেখানে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে উপস্থিত হতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে। তিনি আরও বলেন 'আপনার যদি সাহস থাকে তাহলে একাধিক বিষয় নিয়ে আপনার সঙ্গে তর্ক করতে চাই।' রীতিমত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন প্রধানমন্ত্রীকে। 

প্রধানমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন প্রধানমন্ত্রী বাংলায় স্বপ্ন বিক্রি করতে এসেছেন, যেখানে গোটা দেশে জ্বলানির দাম বাড়ছে। একের পর এক ব্যাঙ্ক বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। উত্তর প্রদেশ ও বিহারের নারী নিরাপত্তা নিয়েও তিনি সরব হন। তুলনা করে বলেন এই রাজ্যের মহিলারা অনেক বেশি সুরক্ষিত।