নন্দীগ্রামের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। ঠিক তার পরের দিন মেদিনীপুরে অমিত শাহের সভায় বিজেপিতে যোগদান করেন শুভেন্দু। সেখান থেকে তৃণমূলকে নিশানা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায় তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেন মমতা। এরপরই, শুভেন্দুকে বিশ্বাসঘাতক বলে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেতৃত্ব। শুধু তাই নয়, নন্দীগ্রামে শুভেন্দু ফের দাঁড়ানোর চ্য়ালেঞ্জ ছুঁড়ে দেয় তৃণমূল।

আরও পড়ুন-আজ বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে অংশ নেবেন মোদী, দেখা যাবে কি আমন্ত্রিত মমতাকেও

আগামী সাত জানুয়ারি নন্দীগ্রামের তেখালিতে সভা করবেন মমতা। ওই জায়গায় গত ১০ নভেম্বর সভা করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর দলবদলের পর শুভেন্দুর পালটা জনসভা করবেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দুর সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন তমলুকের সাংসদ তথা শুভেন্দুর ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী, জমি আন্দোলনের প্রথমসারির নেতা আবু তাহের। পশ্চিম পাঁশকুড়ার বিধায়ক ফিরোজা বিবি। উত্তর কাঁথির বিধায়ক বনশ্রী মাইতিরা।

আরও পড়ুন-বছর শেষেও রেহাই নেই, কলকাতার সামান্য তাপমাত্রা বাড়লেও রাজ্যে জারি থাকবে কনকনে ঠান্ডা

এবার শুভেন্দুকে জবাব দিতে তেখালীতেই সভা করবেন মুখ্য়মন্ত্রী। সেই অনুযায়ী দিনক্ষণ ঠিক করা হয়েছে তৃণমূলের তরফে। সাত জানুয়ারি বেলা একটাই সভা করবেন মমতা। সেখানে আমন্ত্রিত থাকবেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের সব নেতানেত্রীরা। তৃণমূল নেত্রীর সেই সভায় লক্ষাধিক মানুষের ভিড় হতে পারে বলে আশাবাদী তৃণমূল।