পরাগ মজুমদার: প্রাক্তন সতীর্থকে বুড়ো গরু বলে উপহাস করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। একই সঙ্গে নিজেদের প্রার্থীকে বাছুর বলেও অভিহিত করলেন তিনি। রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়্গপুরের কংগ্রেস প্রার্থী রীতা শর্মা ও সবং বিধানসভার কংগ্রেসের প্রার্থী চিরঞ্জীব ভৌমিকের সমর্থনে প্রচার সভা ও রোড শো করতে হাজির হয়েছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী ৷ খড়্গপুর শহরে এদিন দুপুরে সুপার মার্কেট এলাকা থেকে বড়োবাতি এলাকা পর্যন্ত প্রা. তিনি কিমি রোডশো করেন অধীর চৌধুরী৷পরে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে উড়ে যান সবং-এর উদ্দেশে৷ 

আরও পড়ুন-মুর্শিদাবাদের ২ বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী দিচ্ছে ফরওয়ার্ড ব্লক, চরম অস্বস্তিতে সিপিএম...

 এদিন সবংয়ের রাখিল্যা মোড়ে একটি নির্বাচনী জনসভার আয়োজন করা হয়। এদিনের এই জনসভায় প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী, উপস্থিত ছিলেন জোটসঙ্গী সিপিএমের নেতৃবৃন্দ। এদিনের এই জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে সবং বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মানস ভূঁইয়াকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন,     -     বাংলার মুখ্যমন্ত্রী নিজে এখন হুইলচেয়ারে বসে গেছে। নেতাকর্মীদেরও দুদিন পর হুইল চেয়ারে বসতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের মানস বাবুর সাপ ব্যাঙ গিলে নেওয়ার মতো অবস্থা হয়ে গেছে। আর নড়াচড়া করতে পারছেন না। আমার একটাই প্রশ্ন এখানকার তৃণমূলের কর্মীদের কাছে! তোমাদের কি একটাই নেতা, তাও আবার কংগ্রেসের কাছ থেকে ধার করা? আর কোনো নেতা নেই? সেই পরিবার এমপি হবে, সেই পরিবারে বিধায়ক হবে । সেই পরিবার রাজ্যসভায় যাবে সেই পরিবার আবার বিধায়ক হবে। সেই পরিবার পঞ্চায়েত দখল করবে। এর পরই তিনি বলেন, নির্বাচনে যারা দাঁড়িয়েছে তাদের মনে করুন তারা একটা একটা হাটের গরু। সেই গরুর মধ্যে বুড়ো গরু নেবেন, না বাছুর নেবেন তা আপনারা ঠিক করবেন। আমরা চিরঞ্জীব ভৌমিক বাছুরকে নিয়ে এসেছি আপনাদের সামনে। বুড়ো গরু মানসকে নেবেন, না আমাদের তরতাজা বাছুর চিরঞ্জীবকে নেবেন, আপনারা ঠিক করে নিন। এলাকার মানুষ অনেক  প্রতিশ্রুতি দেওয়া হবে আপনাদেরকে বিভ্রান্ত হবেন না। বিজেপি-তৃণমূল যে একই মুদ্রার এ পিঠ ও পিঠ, তা মনে করিয়ে দেন তিনি। 

আরও পড়ুন-সোমবার ইস্তাহার প্রকাশ করল কংগ্রেস, ৮ টি বিষয়ে অগ্রাধিকার...


অন্যদিকে দাঁতন ও নারায়নগড়ে দুই বাম প্রার্থীর সমর্থনে প্রচার সভা করতে হাজির হয়েছিলেন সুর্যকান্ত মিশ্র৷ সুর্যকান্ত মিশ্র বলেন-  দিদি যা করেছেন আজ পর্যন্ত সবটাই ভুল করেছেন ৷ দিদি ও মোদী দুজনেই এক ৷ মোদীর কারণে দেশে মাত্র দুজনের হাতে সমস্ত শিল্প, বাকি সব বিক্রি, এখানে দিদির কারণে কোনো শিল্পই নেই৷ এসবের বিরুদ্ধে রায় দেবেন মানুষ৷