দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে শেষ বেলার প্রচারে মঙ্গলবার তারকেশ্বর বিধানসভা এলাকায় বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে রোড-শো করলেন বিখ্যাত অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। তার রোডশোকে কেন্দ্র করে বিজেপি কর্মী-সমর্থক ও সাধারন মানুষের মধ্যে ছিল চরম উদ্দীপনা। এদিন দুপুর একটা নাগাদ মিঠুনের হেলিকপ্টার তারকেশ্বরের সাহাপুর ফুটবল মাঠে অবতরন করে।গ্রীষ্মের প্রখর রৌদ্রের উত্তাপকে উপেক্ষা করে কাতারে কাতারে মিঠুন ভক্তদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। 

"

রংবেরঙের ফুলমালায় সাজানো ট্যাবলোয় সওয়ারী হন মিঠুন চক্রবর্তী। সঙ্গী হন তারকেশ্বর বিজেপি প্রার্থী স্বপন দ্শগুপ্তসহ বিজেপির প্রথম সারির নেতৃত্বরা। সাহাপুর থেকে চাউলপট্টি মোড়,জয়কৃষ্ণ বাজার হয়ে তারকেশ্বর - আরামবাগ রোড ধরে মিঠুনের ট্যাবলো চাঁপাডাঙার দিকে ধীর গতিতে এগিয়ে যেতে থাকে। যদিও মিঠুনের রোড-শোয়ের তেমন কোন প্রচার ছিল না এলাকায়। কিন্তু মিঠুনের তারকেশ্বর আসার খবর ছড়িয়ে পড়তেই অনুরাগীদের ভিড় বাড়তে থাকে। মিঠুনের যাত্রা পথের দুদিকের গ্রামগুলি থেকে দুপুরে খেতে বসেও ভাতের থালা ফেলে রেখেই অনেক মিঠুন ভক্তরা রাস্তার পাশে ভিড় জমায়।তাদের প্রিয় অভিনেতাকে এতকাল পর্দাতেই দেখেছেন। এদিন মহাগুরুকে হাতের কাছে পেয়ে সশরীরে দেখার সুযোগ কেউ হাত ছাড়া করলেন না। 

"

রাজনৈতিক দৃষ্টি ভঙ্গিতে না দেখে এদিন মিঠুনকে বহু মানুষ তাদের চিরাচরিত অভিনেতা হিসাবে দেখে অভিভূত হয়ে যান।তার একনিষ্ঠ ফ্যানদেরকেও বলতে শোনা গেল আজ মহাগুরুকে কাছে পেয়ে দুচোখ ভরে দেখে তাদের জীবন ধন্য হল।মিঠুন রাস্তার দুপাশের মানুষদের হাত নেড়ে,কখনো হাত জোড় করে শুভেচ্ছা জানান।পাল্টা শুভেচ্ছায় বন্যা বইয়ে দেয় দর্শক।তার রোড-শো শেষ হয় চাঁপাডাঙা তেঁতুলতলা মোড়ে। মিঠুন চক্রবর্তী সাংবাদিকদের সামনে আশা প্রকাশ করে বলেন,বাংলায় পরিবর্তন হচ্ছে। সোনার বাংলা হবে। তিনি একশো এক ভাগ নিশ্চিত।