স্বরাষ্ট্র দপ্তরের সবুজ সংকেতের পরে নিমতিতা কাণ্ডের তদন্তের ভার নিতে চলেছে এনআইএ। রাজ্যের মন্ত্রী জাকির হোসেনের ওপর প্রাণঘাতী আইডি  বিস্ফোরণকাণ্ডে অবশেষে তদন্তভার হাতে তুলে নিচ্ছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এএনআই।

আরও পড়ুন, 'এটা অভিষেক-মুরলীধরের ষড়যন্ত্র' পামেলাকাণ্ডে আদালতের পথে বিস্ফোরক রাকেশ সিং 

 

 

 মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ও বিশেষ সূত্রে এমন খবর মুর্শিদাবাদ জেলায় এসে পৌঁছাতে প্রশাসনিক মহল থেকে শুরু করে আমজনতার মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে। এদিনই রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থা সিআইডির হাতে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসার পরেই সেই খবর গিয়ে পৌঁছায় স্বরাষ্ট্র দপ্তরের হাতে। তারপরেই এনআইএ আইডি বিস্ফোরণকাণ্ডে তদন্তভার তুলে নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে বলেই জানা যায়। এদিকে এনআইএ  তদন্তকারী  আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এই ধরনের বিস্ফোরণ জনিত কার্যকলাপ চরম আইনত অপরাধ। যদিও এক্ষেত্রে ইউএপিএ  অ্যাক্ট প্রয়োগ করা যাবে কিনা সে নিয়ে এখন জোর জল্পনা চলছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকদের মধ্যেই বলেই বিশেষ সূত্র মারফত জানা যায়।

আরও পড়ুন, মহা শিবরাত্রিতে নন্দীগ্রাম থেকে মনোনয়ন পেশ মমতার, তবে ভবানীপুরে কে  

 

 


 স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছ থেকে সবুজ সঙ্কেত মেলার পরে তদন্তভার হাতে নিচ্ছে এনআইএ। প্রসঙ্গত গত ১৭ ই ফেব্রুয়ারি, তৃণমূলের দলীয় অনুষ্ঠানে তথা নবান্নে যোগদানের জন্য নিমতিতা স্টেশন এর দুই নম্বর প্লাটফর্ম থেকে তিস্তা-তোর্সা এক্সপ্রেসে করে হাওড়া আসার জন্য রওনা দিচ্ছিলেন। এমন সময় স্টেশন চত্বরে রাখা আইডি বিস্ফোরণে মন্ত্রীসহ প্রায় ২৬। যার মধ্যে কয়েকজন তাদের হাত-পা ইতিমধ্যেই খুইয়েছেন। ইতিপূর্বে ২০১৭ সাল নাগাদ এই জাকির হোসেন ও তৃণমূল নেত্রীর কাছে দলের স্থানীয় দুই শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে পাচারকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে ছিলেন বলেই তিনি দলের একাংশের চক্ষুশূল হয়ে উঠেছিলেন বলেই জাকির হোসেন ঘনিষ্ঠরা অভিযোগ করেন।

 

আরও পড়ুন, কেন্দ্রীয় সরকারি পদে শুভেন্দুর ইস্তফা ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে, কী কারণে এত বড় সিদ্ধান্ত