'বাংলার কৃষকদের কে লুটেছে', রাজ্য সফরে হুগলিতে এসেই তৃণমূলকে তোপ মোদীর। 'হুগলির দুই পাড়ে জুট মিল', তা যে এখন আর নেই একুশের নির্বাচনের আগে, রাজ্যবাসীকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিতে চাইলেন প্রধান মন্ত্রী মোদী।  পাশপাশি শিল্পের সঙ্গে সংষ্কৃতির প্রসঙ্গ তোলেন তিনি।

আরও পড়ুন, মাসের শেষে ফের রাজ্যে মোদী, কবে ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ করতে পারে কমিশন 


এদিন রাজ্য সফরে এসে ডানলপের জনসভা থেকে হুগলির আলুচাষীদের কথা তোলেন মোদী। 'বাংলার কৃষকদের কে লুটেছে' সোজা প্রশ্ন ছোড়েন মমতার সরকারকে। তিনি আরও বলেন, বাংলার লক্ষ কৃষক 'কিষাণ সম্মান নিধি' থেকে বঞ্চিত।এখানকার সরকারের নোংরা রাজনৈতিক মানসিকতার জন্য বাংলার কৃষকরা এই সুবিধা পায়নি।এরপরে তিনি শিল্প প্রসঙ্গে এসে বলেন, 'হুগলির দুই পাড়ে জুট মিল ছিল। আয়রন এবং স্টিল মেশিনের বড় বড় কারখানা ছিল। আজকে কী পরিস্থিতি,  তা আপনারা জানেন' বলে ফের বর্তমান অবস্থার কথা চোখ আঙুল দিয়ে দেখিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ করেন মোদী। পাশাপাশি তিনি এদিন জানিয়েছেন, 'শালিমার-মহারাষ্ট্র কিষাণ রেল চালু হচ্ছে, এর ফলে বাংলার ছোট ছোট কৃষকরা লাভবান হবেন।' মোদী এদিন 'সিন্ডিকেটরাজ' প্রসঙ্গ তুলে বলেন, বাংলার উন্নয়ন ততদিন সম্ভব নয়, যতদিন এখানে সিন্ডিকেটরাজ চলবে, যতদিন এখানে তোলাবাজি সরকার থাকবে, যতদিন এখানে স্বজনপোষণ চলবে।বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বাংলার মানুষের উৎসাহের কমতি নেই। বরং এখানকার শাসক দলই এখানকার পরিবেশকে নষ্ট করে রেখেছে।'

আরও পড়ুন, 'CBIকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে' অভিষেকের বাড়িতে হানা দিতেই BJPকে তোপ কুণালের 

 

অপদিকের চূঁচূড়ার ডানলপ ময়দানে  মোদী এদিন বললেন, 'বঙ্কিমের বন্দে মাতরম ধ্বনি দেশপ্রেমিকদের মনে এক অসীম শক্তি ভরে দেয়, অথচ সেই বঙ্কিমের স্মৃতি আজ ধ্বংসের পথে, তা রক্ষা করার চেষ্টা হয়নি। যারা বাংলার সংস্কৃতি এবং মনীষিদেকে ভুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে, মানুষ তাঁদের ক্ষমা করবে না, বিজেপি-র সরকার তৈরি হলে এক সোনার বাংলা তৈরি করা হবে।স্বাধীন ভারত গঠনে বাংলার অবদান অনস্বীকার্য, কিন্তু বাংলার পরিকাঠামো কে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ধ্বংস করা হয়েছে। বাংলার উন্নয়ন করা কেন্দ্রের লক্ষ্য', বললেন মোদী।