সোমবার ফের অভিষেকের বাড়িতে সিবিআই হানা নিয়ে প্রতিক্রিয়া কুণালের। রবিবার মূলত অভিষেকের স্ত্রী এবং শ্যালিকাকে নোটিশ দিতেই সিবিআই আধিকারিকরা গিয়েছিলেন। রবিবার  অভিষেকের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্য়োপাধ্যায় বাড়ি ছিলেন না। কয়লাকাণ্ডে রুজিরাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারি সংস্থার আধিকারিকরা। আর এনিয়ে বিজেপিকে তোপ কুণালের।

 আরও পড়ুন, আজ ফের অভিষেকের বাড়িতে CBI, তৃণমূলের যুবরাজের স্ত্রী-শ্যালিকাকে জেরা করবে তদন্তকারি সংস্থা 

'সিবিআইকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে বিজেপি'-কুণাল
 

  রুচিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নোটিশ দেওয়া নিয়ে কুনাল বললেন, 'অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন তাঁকে এই ভাবে ভয় দেখানো যাবে না এবং রুচিরা ও  বলেছেন  কেন নোটিস পাঠিয়েছে সেটা  জানিনা না।' তিনি আরও বলেন, 'ভোটের মুখে এই যে কাজগুলো করছে এগুলো মানুষ পরিষ্কার বুঝতে পড়ছে।আগে যেখানে সারোদা নারোদা মুকুল রায় শুভেন্দু অধিকারীর নাম থাকা সত্ত্বেও তারা গ্রেফতার হচ্ছে না তা সত্ত্বেও ভোটের আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আসাটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। নির্বাচনের আগে বিরক্ত করবার জন্য এগুলো করছে এবং বিজেপি সিবিআইকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে। সিবিআইয়ের প্রতি আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে কিন্তু কিছু বিজেপি নেতা সিবিআইকে ব্যবহার করছে। মানুষ পুরোটাই দেখেছেন পুরোটাই বিচার করবেন।'

ওদিকে ফিরহাদ কন্যাকে ইডি তলব নিয়ে কী বললেন কুণাল

আরও পড়ুন, ফিরহাদ কন্যাকে ED-র তলব, বিদেশে টাকা পাচারের অভিযোগ 

 

অপরদিকে, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেনের অসঙ্গতি এনে পুরমন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমের বড় মেয়ে প্রিয়দর্শীনিকে নোটিস দিয়ে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট তলব করেছে। এই প্রসঙ্গে কুণাল বলেন,  'ববি হাকিমের ব্যাপারটা আমি পরিস্কারভাবে জানিনা সেটা সম্বন্ধে আমি বলতে পারব না। তবে ভোট নিয়ে দিলীপের তোপের পাল্টা জবাব দিলেন কুণাল, বললেন' দিলীপবাবু আজকে  বলেছেন, আসন্ন ভোটের দু'শোর বেশি ভোট পাবে। দিলীপদার সমস্যা তৈরি হচ্ছে তাই সকালে  একটা ওষুধ খেতে হবে। সেই ওষুধ খেলে ঠিক হয়ে যাবে। কারণ উনি জানেন না লোকসভা এবং বিধানসভা ভোটের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য রয়েছে। দিলীপ ঘোষকে উপদেশ দেব একটু রাজনৈতিক পড়াশোনা, একটু পর্যালোচনা চর্চা করুন।'