''যাঁরা প্রকৃত তৃণমূল কর্মী তাঁরাই দলে থাকবেন। বাকিরা দুর্নীতি লুকোতে বিজেপিতে যোগদান করছেন''। সম্প্রতি, প্রত্যেকটি নির্বাচনী সভা থেকে দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে এভাবেই সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপিকে 'ওয়াশিং মেশিন' বলেও কটাক্ষ করেছেন তিনি। এই অবস্থায় বুধবার আলিপুরদুয়ারের জনসভা থেকে দাঁড়িয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতার অভিযোগের প্রেক্ষিতে কি জবাব দিলেন রাজীব? 

আরও পড়ুন-'রথযাত্রা ঘিরে আইনশৃঙ্খলার অবনতি আশঙ্কা', বিজেপির 'পরিবর্তন যাত্রা'বাতিলের দাবিতে মামলা

মুখ্যমন্ত্রীর এই অভিযোগের কড়া জবাব দিলেন রাজীব। হুগলির গুড়াপের সভা থেকে রাজীব বলেন, ''কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে কেউটে বেরিয়ে পড়বে। কোন কোন নেতা ওই পদে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে চিঠি দিয়েছিলেন। তার সব নথি আমার কাছে রয়েছে। দুর্নীতির অভিযোগ থাকলে কেন মমতা তাঁকে দল থেকে তাড়িয়ে দেননি? নিয়োগে স্বচ্ছতা চেয়েছিলাম বলেই বোর্ডের হাতে দিয়েছিলাম''। 

আরও পড়ুন-১২ ফেব্রুয়ারি স্কুল খুললেও খুলছে না কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, দীর্ঘ বৈঠকে সিদ্ধান্ত রাজ্যের

এদিন আলিপুরদুয়ারের কর্মিসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ''বন সহায়ক পদে প্রকৃত চাকরির দাবিদার কেউ বঞ্চিত হলে পুনর্বিবেচনা করা হবে। আমরা রাজীবের দুর্নীতির তদন্ত করছি''। এই অভিযোগের পাল্টা তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রাজীব বলেন, ''নিয়োগে স্বচ্ছতা চেয়েছিলাম বলেই বোর্ডের হাতে দিয়েছিলাম। কিন্তু তারপর বীরভূমের একজন নেতা ফোন করে তাঁর প্রার্থীকে নিয়োগের সুপারিশ করেন। প্রয়োজনে বন সহায়ক নিয়োগের ওই প্যানেল বাতিল করে দিন, আমার কিছু এসে যায় না''।