দীর্ঘ টালবাহানার পর সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরেছেন শোভন-বৈশাখী। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের পর এই প্রথম রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দেখা গেল এই জুটিকে। বিজেপির সংবর্ধনা যাত্রায় বিজেপির মিছিলে উপস্থিত থাকলেন শোভন-বৈশাখী। সোমবার বিকেল চারটে নাগাদ গোলপার্ক থেকে মিছিল শুরু হয়। 

আরও পড়ুন-'বৈশাখী ছাড়া রাস্তায় হাঁটতে পারেন না শোভন', খড়দহ থেকে কটাক্ষ কুণাল ঘোষের

প্রায় তিন বছর পর রাজনীতিতে ফিরেছেন শোভন। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর প্রথম কর্মসূচি থেকে তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ করলেন শোভন। মিছিলেন শুরুতেই তিনি বলেন, ২০১১ সালে যে চিন্তা নিয়ে আমরা সরকার গড়েছিলাম। ২০১৬  সালে সরকারে ফিরেছিলাম। তার থেকে এখন অনেক দূরে চলে গিয়েছে তৃণমূল। একুশের নির্বাচনে বাংলা দখলের লড়াইয়ে সোনার বাংলা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই প্রতিশ্রুতির পাল্টা মমতা বলেছিলেন, বাংলায় সোনার বাংলা গড়া হয়ে গিয়েছে। মমতার এই মন্তব্যকে তীব্র নিশানা করেন শোভন। তিনি বলেন, আমরা উনি বলছেন সোনার বাংলা গড়েছেন। কিন্তু গরু পাচারের, কয়লা পাচারের সোনার বাংলা আমরা চাইনি।

আরও পড়ুন-ইডি-র স্ক্যানারে গরু-পাচার চক্র, এনামূলের কলকাতার অফিসে তল্লাশি সিবিআইয়ের

গত সোমবার খিদিরপুরে শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে বাইক মিছিলের আয়োজন করেছিল বিজেপি। কিন্তু, সেই মিছিলে শেষ মূহূর্তে তাঁরা কেউই উপস্থিত হননি। কিন্তু এদিন শোভন-বৈশাখীর মিছিল ঘিরে অন্য আকর্ষণ ছিল। তাঁদের মিছিলে কত লোক হয় এটাই ছিল বিজেপির কাছে বড় চ্যালেঞ্চ। তবে শোভন-বৈশাখীর বিজেপির মিছিলে কর্মী সমর্থকদের ভিড় কম হয়নি। বিজেপির দাবি, শুধু কর্মী সমর্থকরাই নয়, তাঁদের অনুগামীরাও অনেকেই মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন।