সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-বাংলায় বিধানসভা ভোটের আগে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়িয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। অসন্তোষ প্রকাশ করে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়কে কড়াবার্তা দেওয়ার পর, রাজ্য রাজনীতিতে আরও জল্পনা শুরু হয়েছে তাঁকে ঘিরে। শুভেন্দুর রাজনৈতিক অবস্থান কী? এটাই এখন বাংলার প্রতিটি জায়গায় আলোচনার বিষয়। বৃহস্পতিবার ক্ষুদিরাম বসুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে তমলুকে গিয়েছিলেন শুভেন্দু। দীর্ঘদিন নীরব থেকে অবশেষে সংবাদ মাধ্যমের সামনে মুখ খুললেন তিনি। কী বললেন শুভেন্দু?

আরও পড়ুন-তৃণমূল-বিজেপির 'কেন্দ্রবিন্দুতে' শুভেন্দু, বাংলার রাজনীতিতে তাঁর গুরুত্ব কোথায়

তমলুকে শুভেন্দু অধিকারীকে দেখেই তাঁর মুখোমুখি হন সাংবাদিকরা। তাঁকে নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে বিভ্রান্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমানে তাঁর রাজনৈতিক অবস্থান কী? প্রশ্নের উত্তরে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ''আমি পশ্চিমবঙ্গের সন্তান, ভারতের সন্তান, এটাই পরিচিতি। আমি সব সময় বাংলার মানুষের সঙ্গে আছি। নন্দীগ্রাম থেকে জঙ্গলমহলের নেতাই। সব জায়গাতেই বাংলার মানুষের জন্য লড়াই করেছি''। প্রতিক্রিয়া জানালেন শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন-'দুয়ারে-দুয়ারে' কর্মসূচি সফল করতে আসরে তৃণমূল যুব কংগ্রেস, ভার্চুয়ালে বৈঠকে নির্দেশ অভিষেকের

শুভেন্দুকে নিজেদের দলে রাখতে সবরকম চেষ্টা করেছে তৃণমূল। মঙ্গলবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে সঙ্গে নিয়ে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন। সেখানে সমাধান সূত্র বের হয়। শুভেন্দু দলেই আছেন বলে প্রকাশ্যে দাবি করেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। এরপরের দিন বেলা গড়াতেই দলীয় বৈঠকের বিষয় প্রকাশ্যে আনা নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন শুভেন্দু। তিনি সৌগত রায়কে হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেজ করে জানিয়ে দেন, ''একসঙ্গে কাজ করা সম্ভব নয়, মাফ করুন''।