আক্রান্ত দলবদলু বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর ভাই সৌমেন্দু অধিকারী। কাঁথিতে তাঁর গাড়িতে হামলা চালিয়েছে তৃণমূল আশ্রীত দুষ্কৃতীরা, এমনটাই তাঁর অভিযোগ। তৃণমূলের রিগিং থামাতে গিয়েছিলেন তিনি। সেই আক্রোশেই এই হামলা এমনটাই দাবি করেছেন সদ্য দল বদলানো বিজেপি নেতা। তাঁর গাড়ির সমস্ত কাচ ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে। গাড়ির প্রবীন চালককেও ছাড়া হয়নি।

সৌমেন্দুর অভিযোগ, দক্ষিণ কাঁথির বিধানসভার সাবাজপুড়ে একটি বুথে বিজেপি এজেন্ট বসতে দেওয়া হয়নি। তৃণমূলের ব্লক সভাপতি রামগোবিন্দ দাস এবং  তাঁর স্ত্রীর নেতৃত্বে চলছিল রিগিং। খবর পেয়ে গাড়ি নিয়ে ওই এলাকায় গিয়েছিলেন তিনি। তিনি যখন কর্মীদের সঙ্গে ছিলেন, সেই সময়ই তৃণমূলের কয়েকজন তাঁর গাড়িতে হামলা করে। সৌমেন্দুকে না পেয়ে তারা তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করে, এবং তাঁর গাড়ির চালক (ষাটোর্ধ্ব এক ব্যক্তি)'কেও বেধড়ক মারধর করা হয়। ইট দিয়ে মেরে তার মুখ ফুলিয়ে দেওয়া হয়েছে, বলে অভিযোগ। সৌমেন্দুর দাবি, তিনি ঘটনাস্থলে আসায় সমস্যায় পড়েছিল তৃণমূল। রিগিং করতে পারছিল না তারা। সেই কারণেই হামলা।   

কাঁথির শান্তিকুঞ্জ বাড়িতে এখনও ঘাসফুল প্রতীক ধরে রেখেছেন শুভেন্দুর আরেক ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী। তিনিও এই হামলার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। তৃণমূলের ব্লক সভাপতি রামগোবিন্দ দাসের নেতৃত্বেই হামলা হহয়েছে বলে তিনি খবর পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।