তৃতীয় দফার নির্বাচনে হাওড়া, হুগলি থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগনা দিকে দিকে থেকে আসছে হিংসা ও অশান্তির খবর। মৃত্যু, রক্তপাত, প্রার্থীদের মারধর, ভোটদানে বাধা, বোমাবাজি থেকে ছাপ্পা বাদ গেল না কিছুই। শান্ত ও সুষ্ঠু ভোট করার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। এই সব কিছুই মধ্যেই মঙ্গলবার সকাল সকাল একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে এক মহিলাকে ভোট কেন্দ্রে যেতে বাঁধা দিতে দেখা যায় এক ব্যক্তিতে। মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে ভিডিও।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগানর বিষ্ণপুরে। বিধানসভার ১২৩ নম্বর বুথে মহিলা ভোটারকে বুথে যেতে বাধা দেওয়া হয়।  বাধা দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও ওই মহিলা শাহস দেখিয়ে ওই ব্যক্তির সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন। শাসানি-হুমকি, দেখে নেওয়ার হুশিয়ারীও দেন ওই ব্যক্তি। যদিও কোনও কিছুতেই দমে যাননি ওই মহিলা। সবকিছুর প্রতিবাদ জানিয়ে অবশেষে ভোট দিতে যান ওই মহিলা। এই ভিডিও কিন্তু রীতিমত ঝড় তোলে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঘটনার রিপোর্ট তলব করে নির্বাচন কমিশন।

 

 

এই ঘটনার পরই এলাকায় পাঠানো হয় পুলিস, কেন্দ্রীয় বাহিনী,  সেক্টর অফিসার। মহিলা ও গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলে সকলকে বুথমুখী করে কেন্দ্রীয় বাহিনী। একইসঙ্গে শুরু হয় ঘটনার তদন্ত। অভিযুক্তের খোঁজে শুরু হয় তল্লাশি। পাওয়া যায় মূল অভিযুক্ত তৃণমূল কর্মী গৌরাঙ্গ মাখালকে। তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই ঘটনায় স্বাভাবিভাবেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে এলেকায়। তবে ওই মহিলা সব বাধাকে অতিক্রম করে যেভাবে ভোট দিতে গিয়েছেন, তাকে কুর্নিশ জানিয়েছে নেট দুনিয়া।