কোভিডের মাঝেই শনিবার সপ্তদশ বিধানসভার প্রথম অধিবেশন। অধ্যক্ষ নির্বাচনের জন্য এই অধিবেশন ডাকা হয়েছে। কোভিডে আর কোনও অধিবেশন হবে না। অধ্যক্ষ নির্বাচনের পরে অনির্দিষ্টকালের জন্য মুলতুবি হয়ে যাবে। তবে শনিবারের এই অধিবেশনে থাকছেন না বিজেপি বিধায়করা।  

 

আরও পড়ুন, বাংলায় রাজনৈতিক হিংসার জেরে রিপোর্ট তলব কেন্দ্রের, আজই স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে বৈঠকে রাজ্যপাল 

 
জানা গিয়েছে,  ফের জুনের শেষ বা জুলাইয়ের শুরুতে অধিবেশন বসতে পারে। তখনই পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে কোভিড পরিস্থিতির উপরেই। পাশপাশি এবার তৃতীয়বারের জন্য বিধানসভার অধ্যক্ষ নির্বাচন হতে চলেছেন বিমান বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। তিনি বারুইপুর পশ্চিম থেকে নির্বাচিত তৃণমূল বিধায়ক। এদিকে  শনিবারের এই অধিবেশনে থাকছেন না বিজেপি বিধায়করা। অধিবেশন বয়কট করেছেন তাঁরা। বিজেপির বৈঠকে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ভোট পরবর্তী হিংসা এখনও অব্যহত রাজ্যে। সেই আবহে সাধারণ মানুষ থেকে বিজেপি বিধায়করা, কেউই সুরক্ষিত নন। তাই যতদিন না পর্যন্ত হিংসা বন্ধ হচ্ছে, ততদিনই অধিবেশন বয়কট করবেন তাঁরা।'

 

আরও পড়ুন, Live Covid 19- কোভিডে একদিনে শতাধিক মৃত্যু বাংলায়, মমতার চিঠির উত্তরে বিপুল সাহায্যের আশ্বাস দিল কেন্দ্র  

 

প্রসঙ্গত ভোট পরবর্তী হিংসা এখনও বেড়েই চলেছে রাজ্যে। অসংখ্য বিজেপি কর্মী খুন হয়েছেন, কারও বাড়িতে হামলা হয়েছে, বেধড়ক মারা হয়েছে, কোনও ক্ষেত্রে পরিবারকেও নিগৃহ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। যার জেরে ইতিমধ্যেই এসে কলকাতায় এসে গিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ৪ সদস্যের প্রতিনিধি দল। স্বরাষ্ট্র সচিব রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। তবে এবিষয়ে দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, 'ভোট পরবর্তী সন্ত্রাস নিয়ে কেন্দ্রীয় নের্তৃত্ব আমার কাছে জানতে চেয়েছিলেন, যে তাঁরা কীভাবে আমাদেরকে সাহায্য করবে। আমি বলে দিয়েছি, এত দিন আপনার অনেক সাহায্য করেছেন। তাঁর জন্য ধন্যবাদ। এবার আমাদের বিষয়েই বুঝে নিতে দিন।'