বর্ষবরণের রাতে মহিলাদের সঙ্গে অশালীন আচরণের প্রতিবাদ করার মাশুল দিলেন পাঁচজন যুবক। বহিরাগতদের ডেকে এনে এলাকার কয়েকজন যুবক তাঁদের বেধড়ক মারধর করেছে বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার নরেন্দ্রপুরে।

সন্ধ্যে নামলেই নরেন্দ্রপুরের কারবালা এলাকায় নানাধরণের অসামাজিক কাজকর্ম চলে। মদের আসর বসে, হেনস্থা করা হয় মহিলাদের। তেমনই অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার, বর্ষবরণের রাতে পিকনিক করছিলেন এলাকার কয়েকজন যুবক। পিকনিক চলাকালীন তারা এক মহিলাকে ডেকে আনে এবং রাস্তাতেই তাঁর সঙ্গে আশালীন আচরণ করতে শুরু করে বলে অভিযোগ। ঘটনাটি জানতে পেরে আর চুপ করে থাকতে পারেননি স্থানীয় ক্লাবের সদস্যররা। ওই যুবকদের দাবি, তাঁরা যখন প্রতিবাদ করেন, তখন বাইরে থেকে বেশ কয়েকজন যুবককে ডেকে আনে অভিযুক্তরা। বেধড়ক মারধর করা হয় পাঁচজনকে।  রডের আঘাতে মাথা ফেটে গিয়েছে আক্রান্তদের। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। 

আরও পড়ুন: উত্তরবঙ্গের কালিয়াগঞ্জে একই দিনে দু'বার গণধর্ষণ তরুণীকে, দক্ষিণবঙ্গের দত্তপুকুরেও লালসার শিকার যুবতী

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার, বর্ষবরণের উপলক্ষ্যে বন্ধুদের সঙ্গে পিকনিক করতে গিয়ে বেলুড়ের খুন হয়ে গিয়েছেন এক যুবক।  পুলিশ জানিয়েছেন, বেলুড়ের অম্বিকা জুটমিল এলাকায় তিনটি দলে ভাগ হয়ে এলাকার কয়েকজন যুবক আলাদাভাবে পিকনিক করছিলেন বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, রাতে দুটি দলে মধ্যে বচসা বাধে। মৃত যুবক অন্য একটি দলে ছিলেন। বচসা থামাতে গেলে তাঁকে ১০-১৫ জন যুবক তাঁকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। সিমেন্টের চাঙড় দিয়ে আঘাত করা হয় মাথায়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে আক্রান্ত যুবককে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।