বর্ধমানের পর এবার নদীয়া। ফের নৃশংসতার শিকার অবলা প্রাণীরা। রাতের অন্ধকারে নবদ্বীপে মেরে ফেলা হল ছয়টি কুকুর ছানাকে। ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছেন পশুপ্রেমীরা। দোষীদের শাস্তির দাবিতে অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন তাঁরা। 

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সকালে নবদ্বীপ শহরের আগমেশ্বরী পাড়ার বাসিন্দা দেখেন, রাস্তার পাশে ছয়টি কুকুর ছানার মৃতদেহ! দেহগুলি আগলে রেখেছে মা। সাতসকালে এমন মর্মান্তিক দৃশ্য দেখে ক্ষোভে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দা ও পশুপ্রেমীরা। তাঁদের অভিযোগ, রাতে খাবারের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে পরিকল্পনামাফিক কুকুর ছানাগুলিতে মেরে ফেলা হয়েছে।  পুরসভা ও থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন পশুপ্রেমীরা। শুধু তাই নয়, অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে শুরু হয়েছে অবস্থান বিক্ষোভ।

আরও পড়ুন: দামোদর পেরিয়ে আসানসোলে ঢুকল হাতি, হীরাপুরে মৃত ১

আরও পড়ুন: বাঘ তাড়িয়েও ব্যর্থ হলেন সঙ্গীরা, সুন্দরবনে মৃত তরুণ মৎস্যজীবী

উল্লেখ্য, গত বছরের মাঝমাঝি কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে ১৬টি কুকুর ছানাকে মেরে ফেলার ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছিল রাজ্যেও। পরবর্তীকালে আরও বেশ কয়েকবার এমন নৃশংস ঘটনা ঘটেছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে।  কয়েক মাস আগে বর্ধমান শহরে প্রসব এক কুকুরকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এফআইআর করেন পশুপ্রেমী। গ্রেফতার হওয়ার কয়েক ঘণ্টার পর অবশ্য অভিযুক্ত জামিন পেয়ে যায়। মেদিনীপুরে আবার  রাতের খাবারে মুখে দেওয়া কুকুর পুড়িয়ে মারার অভিযোগ ওঠে মালকিনের বিরুদ্ধে। সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি ঘটল নদিয়ার নবদ্বীপে।