৫ বছরের শিশুকে গাড়িতে বন্দি করে রেখে দিঘার সমুদ্রে স্নানে মত্ত বাবা-মা ! মৃতপ্রায় শিশুকে উদ্ধার করল পুলিশ।
হ্যাঁ, এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল বাঙালির আনন্দের ডেস্টিনেশন দিঘায়। এদিন সমুদ্রে স্নান করতে যাওয়া পর্যটকরা হঠাৎ খেয়াল করেন, একটি গাড়ির মধ্যে লক করে রাখা রয়েছে বছর ৫-এর এক শিশু। তার অবস্থা মৃতপ্রায় অবস্থা। তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করলেও কোনও উপায় ছিল না প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছে।

পড়ুন অন্য খবরঃ দিঘার পথে বিপদ, নয়ানজুলিতে পড়ল যাত্রীবোঝাই এসি বাস, দেখুন ভিডিও

অক্সিজেনের অভাবে গাড়ির মধ্যে থাকা শিশুটির তখন কাহিল অবস্থা। চোখের সামনে শিশুটিকে ক্রমেই নেতিয়ে পড়তে দেখে আতংকিত হয়ে পড়েন পর্যটকরা। ঘটনাস্থলে তখন প্রায় মানুষের ভীড় জমে যায়। কোনও উপায় না দেখে, স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশে খবর দেন। দিঘা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে এসে গাড়ির কাঁচ ভেঙে মৃতপ্রায় শিশুটিকে উদ্ধার করেন। দীর্ঘ সময় জল না পেয়ে আর অক্সিজেনের অভাবে শিশুটি মরণাপন্ন হয়ে পড়েছিল। বাবা মায়ের এত দায়িত্বজ্ঞানহীন কাণ্ডকলাপে সকলেই ছিছিক্কার করছেন। শিশুকে প্রায়ই বাবা মায়ের গাড়িতে রেখে নীচে নামতে হয় তা বলে এতক্ষণ? 

দীঘা মানেই ঘটনা। পর্যটকদের নিয়ম না মেনে সমুদ্রে নামা, বিপদসীমা অতিক্রম করার ঘটনা আকছার ঘটে। মাইকিং করে পুলিশ, সম্প্রতি উপায়ন্তর না দেখে শুরু হয়েছিল গ্রেফতারিও। কিন্তু এই ঘটনা অনেক অনেক বেশি অমানবিক, একথা হলফ করে বলাই যায়।