স্বাধীনতা দিবসের দিন পাড়ার মাঠে চলছিল ফুটবল প্রতিযোগিতা। খেলার মাঝেই বুক দিয়ে বল রিসিভ করতে গিয়ে মর্মান্তিক পরিণতি হল এক একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রের। মাঠের মধ্যে মৃত্যু হল ষোল বছরের তন্ময় সাহার। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে হুগলির চুঁচুড়ায়। 

ষোল বছরের তন্ময় চুঁচুড়ার চকবাজার ব্রাঞ্চ গর্ভমেন্ট হাই স্কুলের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র ছিল। তার বাড়ি চুঁচুড়া থানার অন্তর্গত সাহাগঞ্জ ঝাঁপপুকুর এলাকায়। এবার মাধ্যমিকে ৯২ শতাংশ নম্বর নিয়ে পাশ করেছিল তন্ময়। তন্ময়ের বাবা তারক সাহা পেশায় ক্যাটারিং ব্যবসায়ী। মা মুনমুন সাহা গৃহবধূ। 

পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলোর প্রতিও দারুণ টান ছিল তন্ময়ের। প্রতি বছরের মতো এবারেও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে পাড়ার মাঠে ফুটবল খেলতে নেমে পড়েছিল সে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল  সাড়ে চারটে নাগাদ তন্ময় বুকে বল রিসিভ করা মাত্র মাটিতে লুটিয়ে পরে ছটফট করতে থাকে। কিছুক্ষণের মধ্যেই সে নিস্তেজ হয়ে যায়। তড়িঘড়ি তাঁকে চুঁচুড়া ইমামবাড়া সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আকস্মিক এই দুর্ঘটনায় গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। 

খেলার মাঠে এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনা যে মেধাবী ছাত্রের প্রাণ কাড়বে, তা ভাবতে পারছেন না কেউই। ময়নাতদন্তের পরে এ দিনই তন্ময়ের দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। হাসপাতাল সূত্রে খবর, হৃদযন্ত্রের সমস্যার কারণেই কোনওভাবে বলের আঘাত লেগে মৃত্যু হয়েছে একাদশ শ্রেণির ওই ছাত্রের।