মৌলিককান্তি মণ্ডল, নদিয়া:  দুর্ঘটনা নাকি খুন? করোনা আবহে এক চিকিৎসকের মৃত্যুতে ঘনাচ্ছে রহস্য। ভাড়া বাড়ি থেকে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নদিয়ার বেথুয়াডহরি এলাকায়। 

আরও পড়ুন: জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনা, দ্বিরাগমনে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে প্রাণ হারালেন যুবক

মৃতেরা নাম অর্ণব ঘোষ। বাড়ি, মুর্শিদাবাদের বহরমপুর শহরে। পেশায় দন্ত চিকিৎসক ছিলেন অর্ণব। চাকরি করতেন নদিয়ার বেথুয়াডহরি গ্রামে হাসপাতালে। এলাকায় একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে একাই থাকতেন। কিন্তু নিজে চিকিৎসক হলে কী হবে! উচ্চ রক্তচাপ ও হাইপার টেনশনের মতো অসুখে ভুগতেন অর্ণব। অন্তত তেমনটাই জানিয়েছেন সহকর্মীরা।

আরও পড়ুন: করোনাতঙ্কে ফের অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে মন্দির, নোটিশ ঝুলল তারাপীঠে

রোজকার মতো বুধবার রাতে হাসপাতালে ডিউটি সেরে ভাড়াবাড়িতে ফেরেন অর্ণব। বৃহস্পতিবার সকালে পরিচারিকা এলে কলিং বেল বাজান, তখন কিন্ত আর দরজা খোলেননি তিনি। কী ব্যাপার? সন্দেহ হওয়ায় আশেপাশের লোকজনকে খবর দেন পরিচারিকা।  বাইরে থেকে ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। শেষপর্যন্ত দরজা ভেঙে বাড়ি ঢুকে দেখে যায়, বিছানায় পড়ে রয়েছে চিকিৎসক অর্ণব ঘোষ। বেথুয়াডহরি হাসপাতালে নিয়ে মৃত বলে ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। সহকর্মীর অকালমৃত্যুতে শোকাহত বেথুয়াডহরি গ্রামীণ হাসপাতালে অন্য় চিকিৎসকরা। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ।