নেহাতই দুর্ঘটনা নাকি আত্মহত্যার চেষ্টা? নিজের সার্ভিস রিভলভারের গুলিতেই গুরুতর জখম এক পুলিশকর্মী। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি ভর্তি হাসপাতালে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পুরুলিয়ায়। কী কারণে এমন ঘটনা ঘটল? তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার।

আহতের নাম স্বরূপ লায়েক। পুরুলিয়া শহর লাগোয়া বেলগুমা পুলিশ লাইনে কনস্টেবল পদে কর্মরত ছিলেন তিনি। পুলিশ ব্যারাকেই থাকতেন স্বরূপ। তাঁর সহকর্মীরা জানিয়েছেন, বুধবার মধ্যরাতে বারাকের ভিতরে গুলির শব্দ শুনতে পান তাঁরা। সকলে যখন বাইরে বেরোন, তখন দেখেন, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছেন ওই কনস্টেবল।  ঘটনাটি জানাজানি হতেই রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে পুলিশমহলে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্বরূপকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় পুরুলিয়ার দেবেন মাহাতো হাসপাতালে। কিন্তু শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাতেই ওই পুলিশকর্মীকে স্থানান্তরিত করা হয় দুর্গাপুরের একটি হাসপাতালে। এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে হাসপাতালে স্বরূপ লায়েককে দেখতে যান পুলিশ সুপার সেলভা মর্গন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পিনাকী দত্ত-সহ পুরুলিয়া জেলা পুলিশের পদস্থ আধিকারিকরা। 

কিন্তু পুলিশ ব্যারাকে এমন ঘটনা ঘটল কীভাবে? জানা গিয়েছে, কনস্টেবল স্বরূপ লায়েক মানসিক অবসাদে ভুগতেন। তাহলে কি নিজের সার্ভিস রিভলভার থেকে গুলি চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন তিনি? তেমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না পুলিশের নিচুতলার কর্মীদের একাংশ। তবে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে চাইছেন না কেউই। ঘটনার তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সুপার। 

আরও পড়ুন: খোঁজ নেই ডাক্তারদের, জেলাশাসকের আচমকা হানায় বেআব্রু মালদহ মেডিক্যাল-এর হাল

উল্লেখ্য, বর্ষবরণের দিন পুরুলিয়া শহরে কর্তব্যরত অবস্থায় অ্যাসিড হামলার মুখে পড়েছিলেন এক পুলিশকর্মী। ভরসন্ধে বেলায় শহরের ভিক্টোরিয়া মোড় এলাকায় যখন ডিউটি করছিলেন, তখন তাঁকে লক্ষ্য করে লক্ষ্য এক ব্যক্তি অ্যাসিড ছোঁডে বলে অভিযোগ। ওই পুলিশকর্মীর মুখ ঝলসে যায়।  গুরুতর আহত অবস্থায় আক্রান্তে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। আর এবার খোদ পুলিশ লাইনের ব্য়ারাকেই গুলিবিদ্ধ হলেন এক কনস্টেবল।