রোগী দেখছিলেন, আচমকাই চেম্বার ঢুকে এলোপাথারি গুলি চালাতে শুরু করল দুষ্কৃতীরা।  খুন হয়ে গেলেন এক পল্লি চিকিৎসক। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মুর্শিদাবাদে ডোমকলে। খুনের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশায় মৃতের পরিবারের লোকেরাই।

মৃতের পল্লি চিকিৎসকের নাম আমিন শেখ। বাড়ি, ডোমকলের পাড়দিয়াড় জিৎপুর গ্রামে। রোজই নিজের চেম্বারেই রোগী দেখতেন আমিন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, শনিবার যখন রোগী দেখছিলেন, তখন বাইকে চেপে চেম্বারের সামনে হাজির হয় কয়েক দুষ্কৃতী। সকলেরই মুখে কালো কাপড় বাঁধা ছিল। সটান চেম্বারের ভিতরে ঢোকে যায় তারা। চেম্বারে ঢুকেই ওই পল্লি চিকিৎসকে এলোপাথারি গুলি চালানো হয় অভিযোগ। ঘটনার পর আবার বাইকে করে চম্পট দেয় অভিযুক্তেরা। এদিকে গুলির শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন রোগীরা। 

চেম্বার থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় শেখ আমিনকে উদ্ধার করে ডোমকল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা।  কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে বহরমপুরে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে ওই পল্লি চিকিৎসককে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় বলে জানা গিয়েছে। পরিবারের লোকেদের দাবি, কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গেই যুক্ত ছিলেন  না আমিন শেখ। তেমন কোনও শক্রও ছিল না তাঁর। তাহলে কেন খুন? ধন্দে বাড়ির লোকেরা। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি করেছেন তাঁরা।