বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল পড়শি যুবক। কিন্তু তাতে রাজি হয়নি মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছাত্রী। আর সেই আক্রোশেই অ্যাসিড হামলার শিকার হল ওই ছাত্রী। বাড়িতে পড়াশোনা করার সময় সোমবার সন্ধ্যায় ছাত্রীকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড ছুড়ে মারে স্থানীয় এক যুবক। 

মঙ্গলবাক সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটে মুর্শিদাবাদ জেলার ভরতপুর থানার অন্তর্গত মসজিদপাড়া এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে খবর, মুম্বইয়ে ব্যাগের কারখানায় কর্মরত এলাকার যুবক জামাত শেখ কয়েক দিন আগে ভরতপুর সিনিয়র হাই মাদ্রাসা স্কুলের ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। জামাত শেখ শারীরিক ভাবে অসুস্থ হওয়ায় ওই বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয় ছাত্রীটি। তার পরেই সোমবার সন্ধ্যায় ঘরে বসে পড়াশোনা করার সময় জানলা দিয়ে ওই ছাত্রীকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড ছুড়ে মারে অভিযুক্ত জামাত শেখ। 

অ্যাসিড হামলার পরেই ছাত্রীর চিৎকারে ছুটে আসেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। প্রথমে ছাত্রীটিকে উদ্ধার করে ভরতপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে কান্দি মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার পরামর্শ দেন। 

ঘটনার পরেই অভিযুক্ত জামাত শেখের বিরুদ্ধে ভরতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করে ছাত্রীর বাবা। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত যুবক পলাতক। তার মাকে আটক করে জেরা শুরু করেছে পুলিশ। 

কয়েকদিন আগে অশালীন প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় নদিয়ায় এক গৃহহবধূর উপরে অ্যাসিড হামলা করে এক যুবক। তার পরে ফের মুর্শিদাবাদে এই ঘটনা ঘটল। ফলে, অ্যাসিড হামলা রুখতে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ যে খাতায়কলমেই রয়ে গিয়েছে, তা ফের প্রমাণিত হল।