রাজীব কুমার মুখ খুললেই বাংলায় তৃণমূলের রাজত্ব শেষ। সেই কারণেই দিল্লি গিয়ে তোষামদের রাজনীতি করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুললেন বহরমপুরের সাংসদ এবং লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী। মুকুল রায়কে নিয়ে সিবিআই-এর ভূমিকা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন তিনি

অধীরবাবু এ দিন বলেন, 'অঙ্কটা তো খুব স্পষ্ট। নরেন্দ্র মোদী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাপ দিচ্ছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লি গিয়ে হাতে পায়ে ধরছেন। নরেন্দ্র মোদীর আসল লক্ষ্য ভারতকে কংগ্রেস মুক্ত করা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লক্ষ্যও তাই। সেই কারণেই দু' জনেই ম্যানেজ করে চলছে। এ তো গট আপ গেম। নাহলে তৃণমূলের সবাই যে সারদা কাণ্ডের সঙ্গে তৃণমূল জড়িত। সবাই জানে যে রাজীব কুমার অপরাধী।'

ক্ষুব্ধ অধীর আরও বলেন, 'বিজেপি-র বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য যাঁকে আমরা অগ্নিকন্যা বলে জানি, তিনি দিল্লিতে গিয়ে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের কাছে তোষামোদের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন। সেই কারণেই রাজীব কুমারের কিছু হয় না। রাজীব কুমার মুখ খোলা মানেই বাংলায় তৃণমূল শেষ।'

মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে সিবিআই-এর পদক্ষেপ নিয়েও এ দিন কটাক্ষ করেছেন অধীর। তাঁর অভিযোগ, মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে সিবিআই- এর তৎপরতা পুরোটাই লোক দেখানো। নিজেদের নিরপেক্ষ প্রমাণে বিজেপি-র তরফেই এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেও অভিযোগ অধীরের। মুকুলের বিরুদ্ধে সিবিআই-এর পদক্ষেপের পরে কাজের কাজ কিছু হয় কি না, সেটাই দেখতে চান অধীর।