কৌশিক সেন, রায়গঞ্জ:  আনলক পর্বে শহরে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে আরও বেশি। কিন্তু সাধারণ মানুষের হুঁশ ফিরছে কই! করোনা মোকাবিলায় এবার মালদহের মতোই ডালখোলায় লকডাউন জারি করার সিদ্ধান্ত নিল পুর প্রশাসন। বুধবার থেকে টানা সাতদিন লকডাউন জারি থাকবে।

আরও পড়ুন: 'আনলক'-এ বিপদের হাতছানি, করোনা মোকাবিলায় ফের লকডাউন জারি মালদহে

ডালখোলার শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে থাকতেন দীপক মল্লিক। জুন মাসের শেষের দিকে করোনায় আক্রান্ত হন তিনি। রোগীকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় শিলিগুড়ির কোভিড হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি, বুধবার মারা যান দীপকবাবু। এরপর করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন, এমন দুশোর জনের লালারস বা সোয়াব পরীক্ষা করা হয়। করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে ১৬ জনের।  ঘটনাটি জানাজানি হতেই তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায়। কিন্তু তাতে কাজের কিছুই হচ্ছে না।

আরও পড়ুন: করোনায় মৃত্যু স্বামীর , দুই সন্তানকে নিয়ে রেললাইনে মরণঝাঁপ স্ত্রীর

ডালখোলা পুরসভার প্রশাসক তথা বিদায়ী চেয়ারম্যান সুভাষ গোস্বামী বলেন,  'আমরা লক্ষ্য করেছি, আতঙ্ক থাকলেও বেশিরভাগ মানুষই স্বাস্থ্য দপ্তরের কোনও নির্দেশিকা মানছে না। রাস্তাঘাটে অযথা ভিড় করছেন, প্রয়োজন ছাড়াই বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পড়ছেন। এভাবে যদি চলতে থাকে, তাহলে সংক্রমণ আরও বাড়বে। তাই ৮ জুলাই থেকে সাত পুরোপুরি লকডাউন জারি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।' মানুষকে সচেতন করতে রীতিমতো মাইকিং করে প্রচারও শুরু হয়ে গিয়েছে ডালখোলায়। লকডাউন চলাকালীন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান ছাড়া আর কোনও দোকান খোলা থাকবে না। জাতীয় সড়ক ছাড়া চলবে না যানবাহনও।