বিজেপি চিন্তন বৈঠকে দলের গোষ্ঠীকোন্দলের ছায়া। রাজ্য এবং জাতীয় স্তরের নেতাদের উপস্থিতিতেই দলের জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিক্ষোভ দেখালেন দলের কিছু কর্মী। অস্বস্তি কাটাতে বিক্ষোভকারীদের তৃণমূল সমর্থক বলে দায় এড়ালেন বিজেপি নেতৃত্ব। 

শনিবার থেকে দুর্গাপুরে শুরু হয়েছে দু' দিনের চিন্তন বৈঠক। সেখানে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়-সহ অনেক নেতাই উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচন এবং তার আগে পুর নির্বাচনের জন্য দলের রণকৌশল কী হবে, তা নিয়ে আলোচনা করতে হাজির ছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, রাম মাধবের মতো কেন্দ্রীয় স্তরের নেতারা। বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও উপস্থিত হয়েছিলেন। 

এ দিন সকালে দুর্গাপুরের যে হোটেলে বৈঠক চলছিল, সেখানেই হাজির হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন কয়েকজন বিজেপি নেতা, কর্মী। তাঁদের অভিযোগ, দলের আসানসোল- দুর্গাপুরের জেলা সভাপতি লক্ষণ ঘোড়ুই পুরনো কর্মীদের গুরুত্ব দিচ্ছেন না। নতুন যাঁরা দলে এসেছেন তাঁদেরকেই দলের সব কর্মসূচিতে রাখা হচ্ছে। জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোও তোলেন বিজেপি কর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে দলের কাজ করলেও বর্তমানে নব্য বিজেপি কর্মীদের কাছে তাঁরাই কোণঠাসা। জেলা সভাপতির পদত্যাগও দাবি করেন বিক্ষোভকারীরা। 

বিক্ষোভকারীদের দাবি অবশ্য অস্বীকার করেছেন লক্ষণবাবু। তাঁর সরাসরি অভিযোগ, বিক্ষোভকারীরা আসলে তৃণমূল কর্মী। তোলাবাজিতে বাধা দেওয়াতেই তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হয়েছে বলে দাবি ওই নেতার। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও বলেন, 'যাঁরা এভাবে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন, তাঁদের বিজেপি-তে কোনও জায়গা নেই, তাঁদের জন্য তৃণমূল আছে। আমাদের দলে আলাপ আলোচনার মাধ্যমেই সবকিছুর সমাধান হয়।'