আশিস মণ্ডল, বীরভূম:  অপেক্ষা আর মাত্র একদিনের, করোনা সতর্কতায় ফের লকডাউন জারি হতে চলেছে শহরে। এরইমধ্যে সংক্রমণে প্রাণ গেল আরও এক প্রৌঢ়ের। বীরভূমের রামপুরহাটের ঘটনা।

আরও পড়ুন: করোনা পরীক্ষাই হয়নি,অথচ বর্ধমানের কাটোয়ায় রিপোর্ট এলো পজিটিভ

মৃতের বয়স বাহাত্তর বছর, বাড়ি রামপুরহাট পুর এলাকায় আট নম্বর ওয়ার্ডে। শহরের ১০ নম্বর ওয়ার্ডে কাপড় সেলাই করার একটি দোকান চালাতেন তিনি। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, দিন কয়েক আগে ব্যবসার কাজে কলকাতায় গিয়েছিলেন ওই প্রৌঢ়। অসুস্থ হয়ে পড়েন বাড়ি ফেরার পর। প্রথমে একটি হোমিওপ্য়াথি চিকিৎসক, তারপর রোগীকে দেখেন আরও তিন চিকিৎসক। শেষপর্যন্ত করোনা রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজে করোনা পরীক্ষা করাতে যান, তখন লালারস সংগ্রহ করে ওই প্রৌঢ়কে রাখা হয় আইসোলেশন ওয়ার্ডে।  করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে মঙ্গলবার। এরপর ওই প্রৌঢ়কে পাঠিয়ে দেওয়া হয় রামপুরহাটের কোভিড হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। বুধবার সকালে মারা যান তিনি। মৃতের বাড়ি ও দোকান সিল করে দিয়েছে প্রশাসন। পরিবারের লোকেদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে।  এদিকে রামপুরহাট মহকুমায় নতুন করে আরও সাতজনের করোনা ধরা পড়েছে।

আরও পড়ুন: বাস যাত্রায় থেকে যাচ্ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি, প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ে

উল্লেখ্য,বেশ কিছু দিন ধরে কিন্তু বীরভূমেক পুরসভা এলাকাগুলিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। রামপুরহাট পুরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে মারাও গিয়েছেন এক প্রৌঢ়। সংক্রমণকে বাগে আনা যাবে কী করে? বুধবার জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ, জেলা শাসক মৌমিতা গোদারা, পুলিশ সুপার শ্যাম সিং সহ স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ২৪ থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত সিউড়ি, সাঁইথিয়া, দুবরাজপুর, রামপুরহাট, নলহাটি এবং বোলপুরে পুর এলাকায় বিকেল তিনটে থেকে পরের দিন সকাল ছ'টা পর্যন্ত লকডাউন জারি থাকবে। যদি লকডাউন উপেক্ষা করে বাইরে বেরোন, তাহলে কঠোর ব্য়বস্থা নেবে পুলিশ।