রক্ত দিয়ে লেখা হলো এনআরসি, সিএএ বিরোধী পোস্টার। বীরভূমের রামপুরহাটের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতি এভাবেই কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে শামিল হলো। শনিবার সকালে রামপুরহাট পাঁচমাথা মোড়ে ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যর সিরিঞ্জ-এ করে রক্ত দেন। এর পর সেই রক্ত ব্যবহার করেই তুলি দিয়ে এনআরসি বিরোধী পোস্টার লেখেন সংগঠনের সভাপতি আব্দুর রেকিব।

রবিবার ছিল তৃণমূল প্রভাবিত ফুটপাথ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির বার্ষিক সম্মেলন। সকালে রক্ত দিয়ে পোস্টার লেখার পর মিছিল করে সংগঠনের সদস্য়রা জমায়েত হন রামপুরহাট উচ্চবালিকা বিদ্যালয়ে। সেখানেই বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু রক্ত দিয়ে পোস্টার লেখার ভাবনা কেন?

আব্দুর রেকিব বলেন, 'নেতাজি বলেছিলেন তোমরা আমাকে রক্ত দাও, আমি তোমাদের স্বাধীনতা দেব। অনেক রক্তক্ষয়ের মধ্যে ভারতবর্ষের স্বাধীনতা এসেছিল। সেই ভারতবর্ষকে টুকরো টুকরো করার চেষ্টা করছে বিজেপি ও আরএসএস। আমরা তাই রক্ত দিয়ে পোস্টার লিখে কালা আইনের বিরোধিতা করলাম।' এ দিন সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, রামপুরহাট পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান শুদ্ধোধন বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি। 

আশিসবাবু বলেন, 'রেলের জায়গা থেকে ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদের যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ করছি। গায়ের জোরে উচ্ছেদ করতে এলে আমরা মেনে নেব না। কারণ আইনশৃঙ্খলা কেন্দ্র দেখে না। দেখে রাজ্য সরকার। ফলে আইনশৃঙ্খলা নষ্ট হলে রাজ্য সরকার ছাড়বে না। আমরা চাই পুনর্বাসন দিয়েই উচ্ছেদ করা হোক। পুনর্বাসনের দাবিতে প্রয়োজন হলে আমরা রেলের জেনারেল ম্যানেজার, জেলা শাসক, জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে দেখা করব। কারও পেটে লাথি মারতে দেব না। তার জন্য আপনাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করতে হবে। রাজ্য সরকার আপনাদের সঙ্গে আছে, থাকবে।'