আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  বাইক চালাচ্ছিলেন স্বামী, পিছনে বসেছিলেন স্ত্রী। গলা থেকে সোনা চেন ও কানের দুল ছিঁড়ে চম্পট দিল দুষ্কৃতীরা। বাইক থেকে পড়ে গিয়ে গুরুতর জখম হলেন এক শিক্ষিকা। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের রামপুরহাটে, ১৪ নম্বর জাতীয় সড়কে। 

আরও পড়ুন: প্রবল বিস্ফোরণে উড়ল দাতব্য চিকিৎসাকেন্দ্রের একাংশ, পুজোর মুখে আতঙ্ক ছড়াল বীরভূমে

আক্রান্ত শিক্ষিকার নাম মৌসুমী মণ্ডল। বাড়ি, বীরভূমেরই ময়ুরেশ্বর থানার ব্রাহ্মণবহড়়া গ্রামে। কর্মসূত্রে মুরারই-এ ভাড়া বাড়িতে স্বামীর সঙ্গে থাকেন মৌসুমী। তাঁর স্বামীও পেশায় শিক্ষিক। বুধবার সকালে ১৪ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে বাইকে চেপে বাড়িতে ফিরছিলেন ওই দম্পতি। আক্রান্তের স্বামী ক্ষুদিরাম জানিয়েছেন, 'বাইকে চেপে দুষ্কৃতীরা যে আমাদের পিছু নিয়েছে, বুঝতে পারিনি। চাকপাড়ার কাছে স্ত্রীর গলা থেকে সোনার হার ছিঁড়ে নেয়। প্রায় সঙ্গে সঙ্গে রাস্তায় পড়ে যায় ও। এরপর কানের দুল ছিঁড়ে নিয়ে দুষ্কৃতীরা চম্পট দেয়।' কোনওমতে মৌসুমীকে হাসপাতালে নিয়ে যান তাঁর স্বামী।  রামপুরহাট মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে ওই শিক্ষিকার। তাঁর আঘাত গুরুতর, কান থেকে রক্তরক্ষণ হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: বাড়ি থেকে পালিয়ে দিঘায় আত্মহত্যার চেষ্টা, হাতে-গলায় ব্লেড চালিয়ে হাসপাতালে ছাত্র

এদিকে এই ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। সাতসকালে দুষ্কৃতীদের দৌরাত্ম্যে রীতিমতো আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা তো দূর অস্ত, ঘটনাটি জানা নেই বলে দায় এড়িয়েছে পুলিশ।