সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-বাড়ি থেকে দিঘায় পালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করল এক স্কুলছাত্র। হাতে-গলায় ব্লেড চালিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। হোটেলকর্মীরা তাঁকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু কী কারনে ওই ছাত্র আত্মহত্য়ার চেষ্টা করল তা নিয়ে ধোঁয়াশায় পরিবার।

আরও পড়ুন-তৈরি থাকুন সুরা-প্রেমীরা, নভেম্বর থেকে আরও বাড়তে পারে মদের দাম

মঙ্গলবার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ওল্ড দিঘায়। জানাগেছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের পিংলা থানা এলাকার ধনেশ্বরপুরের বাসিন্দা দীপঙ্কর দাস। বছর উনিশের উচ্চ মাধ্য়মিকের ছাত্র দিঘায় ঘুরতে গিয়ে হোটেলে রুম ভাড়া নেয়। তারপর থেকে সে হোটেলের ঘরেই ছিল সে। এদিন রাতের দিকে হোটেল কর্মীরা দেখতে পায় রক্তারক্তি অবস্থায় হোটেলের ঘরে পড়ে রয়েছে ওই ছাত্র। ব্লেড দিয়ে হাতের সিরা ও গলার নলি কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। হোটেলকর্মীদের নজরে তাঁকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

আরও পড়ুন-নাড্ডার কাছে নারায়ণী সেনার দাবি রাজবংশীদের, আশ্বাস দিয়েছেন সর্বভারতীয় সভাপতি,জানালেন রাজু

কী কারনে এই কাণ্ড ঘটাল ছাত্র? তা নিয়ে এখনও ধোঁয়াশায় পরিবার। জানাগেছে, ধানেশ্বরপুরের মধ্য়বাড় গ্রামের বাসিন্দা চিত্তরঞ্জন দাসের ছেলে ওই দীপঙ্কর। উচ্চ মাধ্যমিকে পড়াশুনা করছে। বাড়ির কাউকে না জানিয়েই দিঘায় চলে আসে দীপঙ্কর।