পৌষ সংক্রান্তির মেলা উপলক্ষে গ্রামে পরিবার পিছু হাজার টাকা চাঁদা ধার্য করেছিল মেলা কর্তৃপক্ষ। সেই চাঁদা না দিতে পারায় গ্রামের একটি বাড়িতে হামলা চালানোর পাশাপাশি সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুর থানার নবগ্রাম এলাকায়। 

অভিযোগ, নেপাল সহ স্থানীয় এক যুবক সহ পাঁচ থেকে ছ' জনের একটি দল সোমবার রাতে মদ্যপ অবস্থায় ওই ছাত্রীর  বাড়িতে চড়াও হয়। কেন দাবি অনুযায়ী চাঁদা মেটানো হয়নি, এই অভিযোগ তুলে বাড়িতে ভাঙচুর চালায় তারা। পাশাপাশি মহিলাদেরও মারধর করা হয়। 

অভিযোগ, তাণ্ডব চালানোর সময় বাড়ির দরজা ভেঙে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ঘরের মধ্যে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্ত নেপাল সর্দর। বাড়ির বাসিন্দাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে প্রতিবাদ করলে ওই নাবালিকাকে ছেড়ে পালায় দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় বারুইপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন ওই ছাত্রীর মা। ঘটনার পর থেকেই রীতিমতো আতঙ্কে রয়েছে গোটা পরিবার। এলাকাবাসীর মধ্যেও আতঙ্ক ছড়িয়েছে। অভিযোগ চাঁদা না দিলে আবার হামলা চালানোর হুমকি দিয়ে গিয়েছে অভিযুক্তরা।