লুটপাঠ কিংবা ছিনতাই নয়, বাড়িতে আগুন লাগিয়ে সাতজনকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করল দুষ্কৃতীরা। প্রতিবেশীদের তৎপরতায় রক্ষা পেয়েছেন সকলেই। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে উত্তর ২৪ পরগণার টিটাগড়ে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: দ্বিতীয় হুগলী সেতুর টোল প্লাজায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা, গুরুতর জখম তিনটি গাড়ির চালক

জানা গিয়েছে, টিটাগড়ের মাঝেরপাড়া এলাকায় থাকেন সুজয় মণ্ডল ও তাঁর স্ত্রী গীতা। ছেলে-বউমা-নাতি-নাতনি মিলিয়ে পরিবারের সদস্য সংখ্যা সাত। বাড়ির লোকেরা তখন ঘুমোচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কেরোসিন তেল ঢেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে রান্নাঘরে দুষ্কৃতীরা আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। আওয়াজ পেয়ে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসেন ওই দম্পতি। দেখেন, রান্নাঘরে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে! কিন্তু বাড়ির বাইরে বেরনো উপায় ছিল না। কারণ, সদর দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। অন্তত তেমনই দাবি আক্রান্ত পরিবারের লোকেদের।  খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা দরজা খুলে সুজয়, তাঁর স্ত্রী-সহ বাকিদের উদ্ধার করেন। 

আরও পড়ুন: মাস্ক পরাতে দেব-দেবীই ভরসা, শিয়ালকোন্দায় বাড়ির গায়ে 'যামিনী রায়'

কিন্তু কেমন এমনটা ঘটল? স্থানীয়  বাসিন্দাদের দাবি, মণ্ডল পরিবারের কেউ রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত নন। কারও সঙ্গে শক্রতা আছে, জানা নেই। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে টিটাগড়ের মাঝেরপাড়া এলাকায়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।