রহস্যের নাম দেবশ্রী রায়। তাঁদের উপস্থিতিতেই দিল্লির বিজেপি সদর দফতরে দেবশ্রীর উপস্থিতি নিয়ে তৈরি হওয়া রহস্য এখনও কাটেনি। কিন্তু তৃণমূলের অভিনেত্রীর বিধায়ককে নিয়ে তিনি যে কতটা ক্ষুব্ধ, তা কলকাতায় ফিরেই বুঝিয়ে দিলেন সদ্য বিজেপি-তে যোগ দেওয়া বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। নাম না করে দেবশ্রীকে পিং পং বল বলেও কটাক্ষ করলেন দেবশ্রী। রবিবার রাতেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কলকাতায় ফেরেন বৈশাখীদেবী। 

গত বুধবার দিল্লিতে শোভনবাবুর সঙ্গে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছেন বৈশাখীও। কিন্তু তাঁরা বিজেপি-তে যোগ দিতে দলের সদর দফতরে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখানে হাজির হন তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী রায়। রটে যায়, শোভনের হাত ধরে বিজেপি-তে যোগ দিচ্ছেন দেবশ্রীও। 

আরও পড়ুন- মমতা ঘরে ফিরতে বলেছিলেন শোভনকে! বিজেপি-তে যোগ দেওয়া নিয়ে এবার সরব রত্না

আরও পড়ুন- 'পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে প্রশ্ন করেছিলাম', নাম না করে মমতাকে বিঁধলেন শোভন

কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়েই শেষ পর্যন্ত বিজেপি-তে যোগ দেননি দেবশ্রী। পরে শোনা যায়, শোভন এবং বৈশাখীর আপত্তিতেই শেষ পর্যন্ত বিজেপি-তে যোগ দিতে পারেননি দেবশ্রী। রায়দিঘির বিধায়ক বিজেপি-তে যোগ দিলে তাঁরা দল ছেড়ে দেবেন বলেও বিজেপি নেতৃত্বকে শর্ত দেন শোভন এবং বৈশাখী। ওই ঘটনার পর থেকে প্রকাশ্যে আসেননি দেবশ্রীও। তাঁর  গতিবিধি নিয়ে ধোঁয়াশায় রয়েছে তৃণমূল নেতৃত্বও। 

এই অবস্থায় রবিবার রাতে কলকাতায় ফিরে নাম না করেই দেবশ্রীকে আক্রমণ করেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি সদর দফতরে দেবশ্রীর যাওয়া প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে কটাক্ষ করে বৈশাখী বলেন, 'আমি একজনকে ঢুকতে দেখেছি, আর ছিটকে বেরিয়ে যেতে দেখেছি। ওরকম পিংপং বলের কী অস্তিত্ব, তাঁর নাম কী, আমি জানি না। যাঁর অনুপ্রেরণায় এই কৌশল নির্মিত হয়েছে, তাঁদের গিয়ে জিজ্ঞেস করুন। এই ঘটনার মধ্যে কাকতালীয় ভাবে যে নামটি ভেসে ওঠে, তাঁর নাম আমি জানি না।' বৈশাখীর কথা থেকেই পরিষ্কার, বিজেপি-তে দেবশ্রীর যোগদান পর্বের পিছনে তৃণমূলের হাত দেখছেন তিনি। রায়দিঘির তৃণমূল বিধায়কের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কী হয়, তা নিয়েই এখন তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।