বছরের শুরু থেকেই নিরাশ দর্শনার্থীরা। কল্পতরুর দিন দর্শণ হয়নি ভবতারিণীর। এখানেই শেষ নয়, বছরের প্রথম তিন তিন শুক্র-শনি-রবিবার পড়ার কারণে আরও বেশি করে কড়া নজর দেওয়া হয়েছে দক্ষিণেশ্বরে। টানা তিনদিন বন্ধ করে দেওয়া হয় দর্শনার্থীদের জন্য প্রবেশ। কিন্তু নিয়ম মেনেই পুজো করা হয়েছে দক্ষিণেশ্বরে। এবার সেই একই ঘটা ঘটল মা সারদার জন্মদিনে। 

আরও পড়ুন- সৌরভকে দেখতে শহরে দেবী শেঠি, তারপরই ছুটির সিদ্ধান্ত ঠিক হবে 'মহারাজের'

মঙ্গলবার ১৬৮ তম জন্মদিন সারদামণির। এই বিশেষ তিথিতে প্রতিবছর মহাসমারহে পুজো করা হয় বেলুরমঠে। এবারও তার কোনও খামতি থাকছে না। তবে দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধই রইল  প্রবেশদ্বার। করোনার প্রকোপ রুখতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেই জানানো হয়। প্রতিবছর এই সময় বিপুল সংখ্যক মানুষের ভিড় হয় বেলুরমঠ ও দক্ষিণেশ্বরে। 

এদিন ভোর চারটে পঁয়তাল্লিশ নাগাত রামকৃষ্ণদেবের মঙ্গল আরতি দিয়ে শুরু হয় পুজো। এরপর সারা দিন নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনের কর্মসূচী রয়েছে। যেমন বেদপাঠ, স্তবগান ভজন,মাতৃ সঙ্গীত,ভক্তিগীতি, লীলা গীতি ইত্যাদী। দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাত ধর্মসভারও আয়োজন রয়েছে। কেবল মন্দিরের ভেতরে থাকা মহারাজ ও কর্মীরাই পালন করছেন এই উৎসব।