ফের চাকরির নামে প্রতারণার অভিযোগ। এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় চাকরির টোপ গিলে দুবাইতে অসহায় পরিস্থিতির শিকার হলেন এক বাঙালি গৃহবধূ। খোদ ভিডিয়ো করে নিজের ভয়াবহ পরিস্থিতির কথা জানালেন তিনি। ইতিমধ্য়েই স্ত্রীকে বাঁচাতে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন স্বামী।

সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে কাকদ্বীপের মিঠুন বাগের সঙ্গে  আলাপ হয় বারাসতের এক বেসরকারি আবাসনের দম্পতির। সায়ক ও তানিয়া চক্রবর্তী নামের ওই  দম্পতির কাছে কাতারে সেবিকার (নার্স)কাজ দেওয়ার টোপ দেয় মিঠুন বাগ। অভিযোগ কাজ পাইয়ে দেওয়ার নামে প্রায় তিন লক্ষ টাকা নেওয়া হয় দম্পতির কাছ থেকে।

পরবর্তীকালে সেই চাকরি পেয়ে কাতারে যান তানিয়া। প্রথমে কোনও এক সংস্থায় কাজে নিয়োগ করলেও পরে কাতার থেকে দুবাইতে তাকে স্থানান্তরিত করা হয়। কিন্তু তানিয়াকে দুবাইতে নার্সের কাজে নিয়োগ না করে পরিচারিকার কাজে নিয়োগ করা হয় বলে অভিযোগ। তাতে রাজি না হওয়ায় তানিয়ার উপর চলে মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার। তার পাসপোর্ট,অন্যান্য পরিচয়পত্র সহ যাবতীয় নথি কেড়ে নেওয়া হয়। 

তানিয়ার পরিবারের অভিযোগ,এখন দেশে ফেরত আসতে চাইছেন তানিয়া। এ বিষয়ে প্রশাসনিক স্তরে  অভিযোগ জানিয়েও কোনও কাজ হচ্ছে না। ইতিমধ্য়েই তানিয়ার বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দফতর সহ জেলাশাসকের দফতরে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁর স্বামী। পরিবারের দাবি, প্রশাসন হস্থক্ষেপ করে অবিলম্বে তানিয়াকে দেশে ফিরিয়ে আনুক। ইতিমধ্য়েই তানিয়া ভিডিয়ো বার্তা ভাইরাল হয়েছে সোশ্য়াল মিডিয়ায়। দুবাইতে অসহায় বাঙালি গৃহবধূ জানিয়েছেন, তিনি একা নন, এরকম আরও অনেক মহিলা এভাবেই দুবাইতে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। প্রতি মুহূর্তে অত্যাচারিত হতে হচ্ছে তাদের।