সেবা সপ্তাহে সেবায় ব্রতী হলেন রাজ্য় বিজেপির সহ সভাপতি ভারতী ঘোষ। খাইয়ে কাপড় বিলিয়ে শেষে প্রবীণার পা ধুইয়ে দিলেন এই বিজেপি নেত্রী। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিনের সপ্তাহকে সেবা সপ্তাহ হিসাবে পালন করছে বিজেপি।     

গত ৩০ জুলাই কেশপুরে একটি সভা করেছিলেন ভারতী ঘোষ ৷ সেই সভা করার পরই মামলা হয়েছিল ভারতী ঘোষের বিরুদ্ধে ৷ পুলিশের অভিযোগ,কেশপুরে বক্তব্য রেখে প্ররোচনা দিয়েছিলেন ভারতী। সেই মামলাতে হাজিরা দেওয়ার নোটিস পেয়ে এদিন হাজির হয়েছিলেন কেশপুর থানাতে ৷ সেখানে আগে থেকেই তাঁর আসার বিষয়ে জানিয়ে দেওয়া হয় পুলিশের কাছে। কিন্তু সেখানে গেলেও পুলিশ জানিয়ে দেয় হাজিরা গ্রহণ করা হবে না ৷ কিছুক্ষণ বসে সেখান থেকে বেরিয়ে যান তিনি ৷ পরে তিনি বলেন, ' একজন পুলিশ কমিশনারকে পালিয়ে বেড়াতে দেখলেও এনাদের কোনও পরিবর্তন নেই ৷ মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে নোটিস পাঠিয়ে হাজিরা নিচ্ছেন না। একইভাবে ২ সেপ্টেম্বরে কোতোয়ালি থানাও ডেকে হাজিরা নেয়নি ৷ এসব প্রমাণসহ আমি সুপ্রিম কোর্টে জানাবো ৷ 

মঙ্গলবার কেশপুর থানা থেকে বেরিয়ে হাজির হয়েছিলেন শিবরামচক গ্রামে ৷ সেখানে গ্রামবাসীদের সঙ্গে সেবা দিবস পালন করেন  ভারতী ঘোষ ৷ চশমা বিলি, বস্ত্র বিলির পাশাপাশি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের ছাত্রছাত্রীদের বসিয়ে খাওয়ান এই বিজেপি নেত্রী ৷ পরে বৃদ্ধাদের পা ধুইয়ে আশীর্বাদ নেন ৷ এদিন সাংবাদিকদের তিনি বলেন, যে মুখ্যমন্ত্রী গত দেড় বছর ধরে প্রধানমন্ত্রীকে নানা ভাবে অপমান করে চলেছেন ৷ দেখা করা তো দূর, নীতি আয়োগের বৈঠকে পর্যন্ত যাননি ৷ আজ দৌড়ে দিল্লি যাচ্ছেন ৷ কেন যাচ্ছেন সেটা আপনারাও জানেন,আমিও জানি ৷ সারদা নারদাতে সর্বস্বান্ত হলেও মানুষের জন্য একবারও রাস্তায় নামেননি ৷ উল্টে পুলিশ বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে যৌথ সন্ত্রাসে নেমেছেন। মিথ্যা মামলা দিয়ে যাচ্ছেন ৷ ৮ বছর ধরে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে কেশপুরের ভোট কিনে বঞ্চিত করে চলেছেন মানুষকে ৷