এনআরসি ও সিএএ ইস্যুতে ফের মুখ্যমন্ত্রীকে এক হাত নিলেন বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ৷ শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা আদালতে একটি মামলাতে হাজিরা দিতে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি ৷ কিন্তু আদালতে আইনজীবীদের কর্মবিরতির কারণে তাঁকে ফেরত যেতে হয় ৷ 

এদিন মেদিনীপুর শহরে কাজে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ফের আরও একবার এনআরসি ও সিএএ ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্য় বিজেপির সহ সভাপতি। তিনি বলেন,৩৭০ ধারা বিলোপের সময় পাকিস্তান যেভাবে বলেছিল রাষ্ট্রপুঞ্জকে নিয়ে আসতে হবে ,তেমনি এবারও একজন পাকিস্তানের সুরে বলছেন রাষ্ট্রপুঞ্জকে দিয়ে গণভোট করাতে হবে ৷ দেশবিরোধী কথা বলে, আসলে এটাকে ইলেকশন ইস্যু করতে চাইছেন ৷ মানুষকে প্রকৃত জিনিসটা বোঝাতে দিচ্ছে না রাজ্য় সরকার ৷ 

গত এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে মেদিনীপুর জেলা আদালত স্থানান্তরের প্রতিবাদে আইনজীবীদের প্রতিবাদ বিক্ষোভ চলছে ৷ সেকারণে কর্মবিরতি থাকায় মামলার কাজগুলি স্থগিত রয়েছে ৷ এই পরিস্থিতির মাঝে শনিবার মেদিনীপুর জেলা আদালতে নিজের মামলার জন্য হাজির দিতে হাজির হয়েছিলেন বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষ ৷ কিন্তু আদালতের প্রবেশপথ বন্ধ করে বিক্ষোভরত আইনজীবীদের দেখে অপেক্ষা করে ফেরত যান ৷

মেদিনীপুর শহরে আরও কিছু কাজ সেরে এদিন সাংবাদ মাধ্যমের প্রশ্নের মুখে ভারতী ঘোষ বলেন, মানুষকে প্রকৃত সত্যটা বোঝাতে দিচ্ছে না সরকার আমাদের ৷ আমরা কোথাও মানুষকে বোঝানোর জন্য সভা করতে চাইলে বাধা দিয়ে বলার মুখ বন্ধ করছে ৷ মানুষ সোশ্য়াল মিডিয়া দ্বারাও যাতে প্রকৃত তথ্য জানতে না পারে তাই ইন্টারনেট সার্ভিস বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে ৷ মানুষকে ভুল বুঝিয়ে ভুল পথে পরিচালিত করছেন ৷ সরকার কাঁসর ঘণ্টা বাজাচ্ছে ৷  এসব মুসলমানদের ভালো করছেন না,এই ইস্য়ুকে এটাকে ইলেকশন ইস্যু করে এগোতে চাইছে সরকার।