পায়ে নয়, ভোট লুঠ করতে এলে তৃণূলের সমাজবিরোধীদের বুকে গুলি করার নিদান দিলেন বসিরহাটের বিজেপি প্রার্থী সায়ন্তন বসু। তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের তালিকা তৈরি করে তাঁরা কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে তুলে দেবেন বলেও হুঙ্কার দিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী। 

তবে এই প্রথম নয়. নির্বাাচন শুরুর আগেও এই একই ধরনের কথা বলেছিলেন এই বিজেপি নেতা. সায়ন্তনের এই মন্তব্যের পরেই তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস.

রবিবারই ঘাটালের কেশপুরে মারমুখী জনতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে গুলি চালায় বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ জওয়ানরা। তাতে আহত হন এক ব্যক্তি। এর পরেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর এক্তিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু গুলি চালানোর এই ঘটনাকে সমর্থন করেন বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। গুলি চালানোর ঘটনাকে সমর্থন করে সায়ন্তন বলেন, বসিরহাটে সমাজবিরোধীরা ভোট লুঠ করতে এলে তিনি কেন্দ্রীয় বাহিনীকে তাঁদের বুকে গুলি করে দিতে  বলবেন। রিগিং করতে এলে গুলি যাতে ঠিক জায়গায় লাগে, সেকথাও তিনি কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বলে দেবেন বলে জানান সায়ন্তন. 

সায়ন্তনের এই মন্তব্যের প্রবল সমালোচনা করেছেন তৃণমূলের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সভাপতি এবং খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তাঁর দাবি, বসিরহাটে সায়ন্তন সাড়ে চার লক্ষ ভোটে হারবেন। সেটা বুঝতে পেরেই এই ধরনের মন্তব্য করছেন তিনি। 

এ দিনও কেন্দ্রীয় বাহিনীকে আক্রমণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মেটিয়াবুরুজের সভা থেকে মমতা অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোটের লাইনে দাঁড়ানো মানুষকে গিয়ে বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদীকে ভোট দেওয়ার জন্য বলছে। তিনি বলেন, "আমরা তোমাদের খেতে, থাকতে দেব, কিন্তু কাজ করতে হবে রাজ্য পুলিশের অধীনে থেকেই।"