নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে এবার দল ছাড়লেন এক বিজেপি নেতা। রাজ্য জুড়ে নয়া আইনের বিরোধিতার মধ্যে বিজেপি-র সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের মফিজুদ্দিন মিঞা। তিনি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের কর্মাধক্ষ। এর ফলে জেলা পরিষদে বিজেপি- র প্রতিনিধিত্ব আরও কমল। লোকসভা নির্বাচনের পরে এই জেলা পরিষদেরই দখল নিয়েছিল বিজেপি। 

প্রাক্তন তৃণমূল নেতা মফিজুদ্দিন লোকসভা নির্বাচনের পরই গত জুলাই মাসে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপি- তে যোগদান করেন। একই সঙ্গে বিজেপি-তে গিয়েছিলেন তৃণমূলের আরও বেশ কয়েকজন সদস্য। কিন্তু যাঁরা তৃণমূল ছেডে় বিজেপি-তে গিয়েছিলেন, তাঁদের অধিকাংশই ফের তৃণমূলে ফিরে এসেছেন। মফিজুদ্দিনের অবশ্য দাবি, আপাতত তিনি নির্দল হিসেবেই কাজ করবেন। নিজের পুরনো দলের সঙ্গে কোনওরকম যোগাযোগ হয়নি বলেই দাবি ওই নেতার। 

শুক্রবার দক্ষিণ দিনাজপুরের দিওর এলাকায় নিজের কার্যালয়ে বসেই বিজেপি-র সদস্যপদ ছাড়ার কথা জানিয়ে দেন মফিজুদ্দিন। একই সঙ্গে তাঁর অনুগামীরাও বিজেপি-র সঙ্গত্যাগ করলেন। 

আরও পড়ুন- নাগরিকত্ব আইন নিয়ে রণক্ষেত্র উলুবেড়িয়া, বিক্ষোভ-অবরোধে রেল ও সড়কপথ

আরও পড়ুন- ক্যাব-এর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা তৃণমূল সাংসদের, দ্রুত শুনানির আর্জি খারিজ

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ক্ষুব্ধ ওই বিজেপি নেতা বলেন, 'বিজেপি সবকা সাথ, সবকা বিকাশ-এর কথা বলেছিল। কিন্তু তারাই সংবিধানের বিরুদ্ধে গিয়ে আইন পাশ করছে। এরা মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করছে। আমি নিজের বিবেকের ডাকে সাড়া দিয়েই পদত্যাগ করেছি।'

এতদিন সভাধিপতি- সহ বিজেপি-র পাঁচজন জেলাপরিষদের সদস্য ছিলেন। মফিজুদ্দিন বিজেপি ছাড়ায় সেই সংখ্যাটা আরও কমে গেল। যদিও এই জেলা পরিষদের সভাধিপতি পদটি এখনও বিজেপি-র দখলে থাকায় উন্নয়নের কাজ বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ শাসক দলের নেতাদের।