এবার অনলাইনে কেনাকাটা করতে গিয়ে প্রতারিত হলেন খোদ উত্তর মালদহের বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু। মোবাইল নয়, তাঁকে পাথর পাঠিয়েছে জনপ্রিয় অনলাইন সংস্থার অ্যামাজন! মালদহের ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন সাংসদ।

মালদহের হবিবপুরের দীর্ঘদিনের সিপিএম বিধায়ক ছিলেন খগেন মূর্মু। লোকসভা ভোটের আগে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপি যোগ দেন তিনি। গেরুয়াশিবিরের প্রার্থী হিসেবে মালদহ উত্তর কেন্দ্র থেকে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন খগেন মুর্মু।  দিওয়ালি উপলক্ষ্যে এখন কেনাকাটায় ছাড় দিচ্ছেন বিভিন্ন অনলাইন সংস্থা। বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু-এর দাবি, দিন কয়েক আগে অনলাইন সংস্থা অ্যামাজনে একটি মোবাইল ফোনের অর্ডার দিয়েছিলেন তিনি। মোবাইলটির দাম প্রায় বারো হাজার টাকা। সোমবার সকালে যথারীতি মালদহে শহরের মকদমপুরে খগেন মূর্মু-এর বাড়িতে মোবাইলটি দিয়ে যান অনলাইন সংস্থার কর্মী।  মোবাইলটি নিয়েও নেন তিনি। বিজেপি সাংসদের অভিযোগ, যে সংস্থার মোবাইল ফোনের অর্ডার দিয়েছিলেন,  মোবাইলটি সে সংস্থার বাক্সে ছিল না। অন্য একটি বাক্সে মোবাইলটি দিয়ে যান অনলাইন সংস্থার কর্মী। তাতেও অবশ্য আপত্তি করেননি তিনি।  কিন্তু বাক্সটি খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ! সাংসদের দাবি, মোবাইল নয়, বাক্সে ছিল একটি পাথর! অনলাইন সংস্থার অ্যামাজনের বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মালদহ উত্তরের বিজেপি সাংসদ খগেন মূর্ম। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

এখন সকলেই ব্যস্ত। দোকানে গিয়ে পছন্দের জিনিস কেনার সময় কই!  অগত্যা ভরসা অনলাইন সংস্থাগুলি।  দোকানের যাওয়ার ঝক্কি তো নেই, উল্টে যা  অর্ডার করবেন, তা বাড়িতে পৌঁছেও দিয়ে যান অনলাইন সংস্থার কর্মীরা।  কিন্তু আপনি যা অর্ডার করলে, সেই জিনিসটাই কী হাতে পেলেন? বাক্স না খোলা পর্যন্ত তা বোঝার নেই। আর ইদানিং অনলাইনে অর্ডার দিয়ে প্রতারিত হওয়ার ঘটনা কিন্তু বেড়েই চলেছে। প্রতারণা শিকার হয়েছেন অনেকেই। এবার সেই তালিকায় নাম উঠল খোদ বিজেপি সাংসদের।