অনেক দিন ধরেই রাজ্যের আইন শঙ্খার পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে বলে অভিযোত তুলেছিল বিজেপি। একবার নন বারবারই এই অভিযোগ করেছিল। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার দলের সর্বভাবতীয় সভারতি জেপি নাড্ডাক কনভয়ে হামলার ঘটনার পর থেকে আইন শঙ্খলার অবস্থাকেই একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু বানিয়েছে বিজেপি। তাই এবার আর অভিযোগ অনুযোগ নয়। সরাসরি রাজ্যের আইশৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে এবার নির্বাচন কমিশনকে চিঠি লিখল বিজেপি। সূত্রের খবর ওই চিঠিতেই ২০২১ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন, তার অনেক আগে থেকে রাজ্য কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের আর্জি জানান হয়েছে বলে সূত্রের খবর। 

রাজ্য বিজেপি নেতা সব্যসাতী দত্ত বলেছেন এই রাজ্যের অবস্থা কাশ্মীরের থেকেও খারাপ। তাই বাংলার জরুরি ভিত্তিতে মডেল আচরণবিধি লাগু করারও দাবি জানান হয়েছে দলের তরফ থেকে। রাজ্যে শান্তিপূর্ণ ভোট প্রচার নিয়েও আশঙ্কা করেছে গেরুয়া শিবির। নির্বাচন কমিশনকে দেওয়া চিঠিতে বিজেপি বলেছে যে বাংলার আইন শৃঙ্খলার অবস্থা খুবই খারাপ। একই সঙ্গে রাজ্যে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষেও সওয়াল করেছে পদ্মশিবির। তেমনই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। 

রাজ্যে বিজেপি কর্মীদের ওপর বারবার হামলা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছে বিজেপি। তাতে হাত রয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের। পুলিশ তৃণমূলের দলদাসে পরিণত হয়েছে বলেও অভিযোগ করে বিজেপি। আর সেই কারণে রাজ্য পুলিশের ওপর তাঁরা ভরসা রাখতে পারে না বলেও একাধিকবার জানিয়েছে।  রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা ইস্যুতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও একাধিকবার নিশানা করেছে বিজেপি। তবে বিজেপি প্রধান জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলার পর থেকেই এই বিষয়টি নিয়ে কিছুটা হলেও সুর চড়িয়েছে গেরুয়া শিবির। আর আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখেই বিজেপি রাজ্যে একের পর এক কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। আর তাতে রীতিমত গুরুত্ব পাবে নাড্ডার কনভয়ে হামালার বিষয়টি। তেমনই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।