উত্তম দত্ত, হুগলি: পরীক্ষায় অসফল হওয়ার ভয়েই কি আত্মহত্যা করলেন? তিনদিন নিখোঁজ থাকার পর নিট পরীক্ষার্থীর দেহ ভেসে উঠল গঙ্গায়। ছেলের দেহটি শনাক্ত করেছেন পরিবারের লোকেরা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল হুগলির কোন্নগরে।

আরও পড়ুন: দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, প্রাণ হারালেন রাজ্যের মহিলা পুলিশকর্তা

বাবা পেশায় কলকাতা পুলিশের কর্মী। কোন্নগরের বিদিশা হাউজিং-এর বাসিন্দা অভিক মণ্ডল। ছোট থেকে মেধাবী ছাত্র ছিলেন তিনি। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চেয়েছিলেন তিনি।  দিনরাত এক করে প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন ডাক্তারি সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা বা নিট-এর জন্য। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড আনার জন্য সাইকেলে চেপে এলাকার একটি সাইবার ক্যাফে যান অভীক। এরপর রাত ন'টাতেও যখন তিনি ফিরলেন না, তখন দুঃশ্চিন্তা বাড়তে থাকে বাবা-মায়ের। গভীর রাতে অভিকের সাইকেলটি হদিশ মেলে কোন্ননগরের গঙ্গার ঘাটে। 

আরও পড়ুন: প্রাণঘাতী চিনামাঞ্জা, হুগলিতে বড়সড় কারখানার হদিশ পেল পুলিশ

কোথায় গেল ছেলেটা? উত্তরপাড়া থানায় অভিকের নামে নিখোঁজ ডায়ের করেন পরিবারের লোকেরা। শুক্রবার সকালে হুগলির হিন্দমোটরের শিবতলা ঘাটের পাশে গঙ্গা ধারে অভীক মণ্ডলের দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় থানায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। ছেলের দেহ শনাক্তও করেছে পরিবারের লোকেরা। প্রাথমিক তদন্তে এই ঘটনাকে আত্মহত্যা বলেই মনে করছে পুলিশ।