পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছে আগেই। সারাক্ষণ টিকটক নিয়েই ব্যস্ত থাকত সে। শেষপর্যন্ত বন্ধুদের সঙ্গে ভিডিও করতে গিয়ে বেঘোরে মারা গেল এক কিশোর। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে মালদহে।

মৃতের নাম কারিম শেখ। বাড়ি, মালদহের পুখুরিয়া খানার পীরগাই গ্রামে। মঙ্গলবার বিকেলে গ্রামে দু'জন বন্ধুর সঙ্গে টিকটক ভিডি করছিল কারিম। ভিডিও তোলার নেশায় এতটাই বুঁদ হয়ে গিয়েছিল যে, নিজের মুখ ও গলা পলিথিনের মধ্যে ঢুকিয়ে ফেলে ওই কিশোর। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বেশ কিছুক্ষণ পর শ্বাসকষ্ট শুরু হয় এবং একসময়ে মাটিতে অজ্ঞান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে কারিম। তাকে ওই অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় বন্ধুরা।  স্থানীয় বাসিন্দারা যখন ওই কিশোরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান, ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে। হাসপাতালে কারিম শেখকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।  ঘটনায় শোকের ছায়া নেমেছে এলাকায়। ঘটনার সময়ে শেখ কারিমের সঙ্গে যে তার যে দু'জন বন্ধু ছিল, তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা। দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্তও। 

আরও পড়ুন: বাবাদের হুঁশ ফেরাতে পড়ুয়াদের চিঠি, অভিনব উদ্যোগ বর্ধমানে

উল্লেখ্য, টিকটক ভিডিও তুলতে গিয়ে প্রাণহানির ঘটনা এই প্রথম নয়। বিপর্যয় ঘটেছে একাধিকবার।  গত সোমবার উত্তরপ্রদেশের বাবার বন্দুক নিয়ে টিকটক ভিডিও তুলতে গিয়ে অসাবধানতায় ট্রিগারে চাপ দিয়ে ফেলে এক সেনা জওয়ানের ছেলে। গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ওই কিশোর। পুরুলিয়ায় আবার ট্রেনের সামনে থেকে লাইন পার হওয়ার টিকটক ভিডিও তুলতে গিয়েছিল এক কিশোর। ট্রেনে ধাক্কায় মারা যায় সে।