সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানদের চোখে ধুলো দেওয়ার ফন্দি। বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় আমগাছে প্লাস্টিক ঝুলিয়ে রেখেছিল চোরাচালানকারীরা। কিন্তু, তাতেও শেষরক্ষা হল না। পাচার হওয়ার আগেই ৬০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করল বিএসএফ। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার বসিরহাটে স্বরূপনগরে। অভিযুক্তরা অধরা। 

স্বরূপনগর থানার দহরখণ্ড গ্রামটি বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া। গ্রামে চোরাকারবারিদের রমরমা যথেষ্টই।  সোমবার ভোরে যখন গ্রামে টহল দিচ্ছিলেন বিএসএফ জওয়ানরা, তখন তাঁদের নজরে পড়ে, বেশ কয়েকটি আমগাছে প্লাস্টিকের প্যাকেট ঝুলছে। সন্দেহ হওয়ায় তল্লাশি শুরু করেন জওয়ানরা। বিএসএফ সূত্রে খবর, যে আমগাছগুলিতে প্লাস্টিকের প্যাকেট ঝুলছিল, সেই গাছগুলির নিচে ৬০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার হয়। নিষিদ্ধ এই শিরাপের বাজারমূল্য এক লক্ষ টাকারও বেশি।  তবে চোরাকারবারিদের কিন্তু ধরা যায়নি। বিপদ বুঝে আগেই তারা পালিয়ে যায় বলে জানা দিয়েছে।

আরও পড়ুন: পঁচাত্তর বছরের কাকিমাকে 'ধর্ষণ', গ্রেফতার প্রতিবেশী যুবক

জানা গিয়েছে, বাংলাদেশে পাচার করার জন্য আমগাছের নিচে ফেনসিডিল মজুত রেখেছিল চোরাকারবারীরা। কিন্তু, গ্রামে-গঞ্জে তো আর আমগাছের অভাব নেই! তাই যে গাছের তলায় ফেনসিডিল রাখা হয়েছিল, সেই গাছে আবার প্লাস্টিক প্যাকেট ঝুলিয়ে আলাদা করে চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কাজই তো হলই না, উল্টে নিশানা দেখেই সহজেই পাচারের ছক বানচাল করে দিল বিএসএফ।

আরও পড়ুন: বর্ষবরণে তিলোত্তমায় থাকছে না বৃষ্টির ভ্রুকুটি, আশার খবর শোনাচ্ছে হাওয়া অফিস

উল্লেখ্য, চোরাচালান রুখতে এ রাজ্যের বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় লাগাতার অভিযান চালাচ্ছে বিএসএফ। গত গত সপ্তাহেই উত্তর চব্বিশ পরগণার স্বরূপনগর থেকেই ফেনসিডিলের দুই হাজারটি বোতল উদ্ধার করে বিএসএফ।