বর্ষার টিপ টিপ বৃষ্টির সুযোগে বাড়ির পাশাপাশি রাস্তা ধরে সোজা গৃহস্থের জানালা বেয়ে ফ্রিজের ভিতরে ঢুকে বসে ছিল একটি গোখরো সাপ। আচমকাই গভীর রাতে ভয়ঙ্কর ফোঁস ফোঁস আওয়াজ শুনতে পান পরিবারের লোকজন। ফ্রিজের দরজা খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ। কোনওভাবে তার শব্দ শুনে বুঝে গিয়েছিলেন পরিবারের লোকজন। রাত বারোটা নাগাদ ফ্রিজের তলা থেকে পূর্ণবয়স্ক ওই বিষধর সাপটিকে উদ্ধার করা হয়।

মেদিনীপুর শহরের কুইকোটা এলাকার বাসিন্দা প্রতীক মিশ্রের বাড়িতে পরিবারের লোকেরা রাত ১১টার পর এই সাপের উপস্থিতি বুঝতে পারেন ঘরের মধ্যে। বিশাল ফোঁস ফোঁস শব্দে দ্রুত ছুটে বাড়ির বাইরে বের হয়ে যান সকলে। সকলে সাবধান হয়ে সাপটিকে না মারার সিদ্ধান্ত নেন। খবর দেওয়া হয় মেদিনীপুর শহরের সর্প বন্ধু দেবরাজ চক্রবর্তীকে। যিনি বিনা পারিশ্রমিকে সাপ উদ্ধার করে জঙ্গলে ছেড়ে দেন। 

দেবরাজ রাত বারোটা নাগাদ ওই বাড়িতে ঢুকে পূর্ণবয়স্ক ওই গোখরো সাপটিকে উদ্ধার করেন। সাপটিকে ছাড়া হয় মেদিনীপুর শহর সংলগ্ন একটি জঙ্গলে। 

দেবরাজ জানান গরম ও বর্ষার এই সময়টায় মানুষকে একটু সচেতন থাকার অনুরোধ করা হচ্ছে। কারণ সাপ এইসময়েই বেরোয়। কোথাও এরকম সাপ দেখলে প্রাণে না মেরে পরিবেশবিদদের খবর দিন। পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখতে এই সাপের মত প্রাণীদের বেঁচে থাকার প্রয়োজন রয়েছে। আপাতত সাপটিকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে পরিবারের লোকের সহযোগিতায়। সাপটিকে নির্দিষ্ট জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।