আশিষ মণ্ডল, বীরভূম:  সংস্কার করা হয়নি, এমনটা কিন্তু নয়। আট মাসের মাথায় ফের ফাটল ধরল ডেউচার সেতুতে। জাতীয় সড়কে ব্যাহত যান চলাচল। ঘুরপথে চলছে পণ্যবাহী গাড়ি। কেন্দ্রীয় সরকারকে বিকল্প সেতু তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। ঘটনাস্থল, বীরভূমের মহম্মদবাজার।

আরও পড়ুন: জাতীয় সড়কে তেলে ট্যাঙ্কারের ধাক্কা তিনজনের মৃত্যু, ভয়াবহ দুর্ঘটনা খড়গপুরে

জানা গিয়েছে, ১৯৫২ সালে  বীরভূমের মহম্মদবাজার এলাকায় দ্বারকা নদীর উপর জলাধা-সহ একটি সেতু তৈরি করা হয়। সেতুটি ডেউচার সেতু নামে পরিচিত। জলাধারে জল ধরে রাখার জন্য় গেট রয়েছে দশটি। বিশেষজ্ঞদের মতে, নদীর উপর যেকোনও কংক্রিটের নির্মাণের আয়ু সাধারণত পঞ্চাশ বছর। কিন্তু ডেউচার সেতুর বয়স ষাট পেরিয়ে দিয়েছে। সেক্ষেত্রে বিকল্প সেতু তৈরি না করার জন্যই কি ঘটল বিপত্তি?

বুধবার সকালে সেতুর একাংশ ফাটল দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি জানানো হয় কর্তব্যরত সিভিক ভলান্টিয়ারদের। ভেঙে যাওয়া অংশটি ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় মহম্মদবাজার থানার পুলিশ, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের আধিকারিকরা। আপাতত ডেউচার সেতু এড়িয়ে ঘুরপথে চলছে পণ্যবাহী ভারী গাড়ি। যাত্রীবাহী বাস ও ছোট গাড়িগুলিকে সেতুর উপর দিয়ে ধীর গতিতে চালানো হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ফেরুয়ারি মাসে সেতু একটি অংশে চাঙর খসে পড়েছিল। তখন সেতু সংস্কার করা হলেও, তা পর্যাপ্ত নয়। অবিলম্বে যদি বিকল্প সেতু তৈরি করা না হয়, তাহলে যেকোনও সময়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

আরও পড়ুন: ব্যস্ত রাস্তায় দলছুট হাতির 'দাদাগিরি', তাড়া খেয়ে জখম ১, প্রাণরক্ষা অ্যাম্বুল্যান্স চালকের

জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের বীরভূম জেলার ভারপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার নিশিকান্ত সিং বলেন, 'সেতুতে ফাটলের খবর পাওয়া মাত্র আমরা মেরামতির কাজ শুরু করেছি। এই প্রাচীন সেতুর বিকল্প হিসাবে কর্তৃপক্ষের কাছে আরও একটি সেতু নির্মাণের প্রস্তাব পাঠিয়েছি। অনুমতি পেলেই কাজ শুরু করা হবে।'